আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩-এ এখন পর্যন্ত সবচেয়ে অপ্রত্যাশিত টুইস্ট

Home » আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩-এ এখন পর্যন্ত সবচেয়ে অপ্রত্যাশিত টুইস্ট

আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩ শুরু হবার পর, গত কয়েকদিনের মধ্যেই, উল্লেখযোগ্য দুটি বিপর্যয় ঘটেছে যা লক্ষ লক্ষ ক্রিকেটপ্রেমীকে বিস্মিত করেছে।

রবিবার ইংল্যান্ডের কাছে আফগানিস্তানের 69 রানে পরাজয়ের রেশ এখনো কাটেনি, আন্যদিকে নেদারল্যান্ডস, মঙ্গলবার আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩ -এ একটি অত্যাশ্চর্য পালাক্রমে ঘটেছে, যখন তারা দক্ষিণ আফ্রিকাকে 38 রানে হারিয়েছে।

কোন সন্দেহ নেই যে এই দুটি বড় আপসেট আইসিসি বিশ্বকাপ -এ প্রচুর উত্তেজনা এনেছে।

তবুও, বিশ্বকাপের ইতিহাসে এমন ঘটনা এই প্রথম নয়, যা কিছু ফ্যানেদের কাছে মন খারাপে ভরা।

যদিও এটি এই বিশ্বকাপের প্রথম হতে পারে, তবে টুর্নামেন্টের আগের সংস্করণগুলিতেও অসংখ্য এমন বিপর্যয় ঘটেছে।

এবারে আসুন আমরা এই ২০২৩ আইসিসি বিশ্বকাপ -এর এমন কিছু ম্যাচের সম্বন্ধে জেনে নিই যেখানে ফ্যানেদের এমনি কিছু অপ্রত্যাশিত সারপ্রাইজ পেতে দেখেছি-

ইংল্যান্ড বনাম আফগানিস্তান, বিশ্বকাপ ২০২৩

ইংল্যান্ড বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দল, এবং তারা এই ম্যাচে জয়ের জন্য নিঃসন্দেহে ফেভারিট ছিল।

 মুজিব উর রহমানের তিন উইকেট নেওয়ার দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে, আফগানিস্তান ২০২৩ ওডিআই বিশ্বকাপে একটি বড় বিপর্যয় তৈরি করেছিল।

 কারণ তারা দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের ৬৯ রানে পরাজিত করেছিল।

রবিবার আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩ ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২৮৪ রানে অলআউট হয়েছে আফগানিস্তান।

 আইসিসি বিশ্বকাপ, ২০২৩ -এর এই ম্যাচে ইংল্যান্ড টস জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয়। আফগানিস্তানের হয়ে ওপেনার রহমানুল্লাহ গুরবাজ রান আউট হওয়ার আগে ৫৭ বলে ৮০ রান করেন।

 এই ম্যাচে তারকা লেগ-স্পিনার রশিদ খান এবং মুজিব উর রহমান যথাক্রমে ২৩ এবং ২৮ রান করেন। ইংল্যান্ডের হয়ে লেগ স্পিনার আদিল রশিদ তুলে নেন ৩উইকেট ৪২ রান দিয়ে।

আইসিসি বিশ্বকাপ, ২০২৩ দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম নেদারল্যান্ডস

আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩ -এ নেদারল্যান্ডস ইতিহাস রচনা করেছে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ৩৮ রানে জয়ী হয়ে।

নেদারল্যান্ডস মঙ্গলবার আইসিসি বিশ্বকাপ -এ শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৩৮ রানে পরাজিত করেছে।

 এই নিয়ে ডাচ্‌রা এই নিয়ে এক বছরে দ্বিতীয়বারের মতো প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে অসাধারণ পারফর্মেন্স করে সকলকে চমকে দিয়েছে।

জয়ের জন্য ২৪৬ রান তাড়া করে, টুর্নামেন্টের অন্যতম ফেভারিট দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংস মাত্র ২০৭ রানে শেষ হয়ে যায়।

গত বছরের নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বিধ্বস্ত করে এই ডাচরাই ফেরত পাঠিয়েছিল।

আইসিসি বিশ্বকাপ, ২০২৩ দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম নেদারল্যান্ডস

আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩ -এর এই ম্যাচটিতে অধিনায়ক স্কট এডওয়ার্ডস ৬৯ বলে ১০টি চার ও একটি ৬ সহ ৭৮ রানের একটি সুন্দর ইনিংস খেলে নেদারল্যান্ডস একটি লড়াকু লক্ষ্য পূরণ করতে সক্ষম হয়।

টেইল-এন্ড ব্যাটার আরিয়ান দত্ত শেষ কয়েক ওভারে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ছয় মেরে নেদারল্যান্ডের চূড়ান্ত স্কোর ২৪৪/৮ এ পৌঁছে দেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার পেসাররা পুরো খেলায় আধিপত্য বিস্তার করছে কারণ নেদারল্যান্ডসের উইকেট নির্দিষ্ট ব্যবধানে পড়েই চলেছিল।

কাগিসো রাবাদা ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের ২ উইকেট নিয়েছিলেন।

দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম নেদারল্যান্ডস ম্যাচটি বৃষ্টির কারণে অনেক বিলম্বের পরে শুরু হয়।

এখন পর্যন্ত তাদের দুটি ম্যাচে, দক্ষিণ আফ্রিকা তাদের প্রতিপক্ষের উপর আধিপত্য বিস্তার করেছিল, যার মধ্যে  প্রথম লড়াইয়ে অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কাকে 102 রানে পরাজিত করেছে।

 আর পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়াকে লখনউয়ের একনা স্টেডিয়ামে ১৩৪ রানে পরাজিত করেছে।

অন্যদিকে নেদারল্যান্ডের জন্য আইসিসি বিশ্বকাপ -এ এটিই তাদের প্রথম জয়, যেখানে দক্ষিণ আফ্রিকাকে তারা ৩৮ রানে হারিয়েছে ।

আইসিসি বিশ্বকাপ, ২০২৩: দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম ইংল্যান্ড

আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩ -এর দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম ইংল্যান্ড ম্যাচের ফলাফলকে সম্পূর্ণভাবে অপ্রত্যাশিত টুইস্ট বলা যায় না একথা ঠিকই।

তবে একথা হয়ত কেউই ভাবেনি যে প্রোটিয়ারা গতবারের চ্যাম্পিয়ানদের এই ম্যাচে এভাবে উড়িয়ে দিতে পারবে বলে। 

সেকারণেই আমাদের এই তালিকায় আইসিসি বিশ্বকাপ -এর এই ম্যাচটিও জায়গা করে নিয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম ইংল্যান্ড

শনিবার মুম্বাইতে হওয়া আইসিসি বিশ্বকাপ ২০২৩ -এর ২০ তম ওয়ানডে ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার একটি অলরাউন্ড প্রদর্শন ইংল্যান্ডকে ২২৯ রানে পরাজিত করতে সাহায্য করেছে।

দক্ষিণ আফ্রিকা প্রথমে ব্যাট করে ৫০ ওভারে ৩৯৯/৭ -এর একটি বিশাল স্কোর করেছিল, যেখানে ইংল্যান্ড ২২ ওভারে ১৭০/৯ করে (রিস টপলি ইনজুরির কারণে ব্যাট করতে নামেননি)।

এম্যাচে বল হাতে দক্ষিণ আফ্রিকার নেতৃত্ব দেন মার্কো জ্যানসেন।

400 রানের বিশাল লক্ষ্যমাত্রাকে তাড়া করতে নেমে ইংল্যান্ড ২৪/৩-এ নেমে যাওয়ায় তিনি দুটি উইকেট নেন।

 লুঙ্গি এনগিডি একটি উইকেট নেন। বেন স্টোকসকে ৫(৮) বলে আউট করেন কাগিসো রাবাদা।

আইসিসি বিশ্বকাপ -এর এই ম্যাচে দক্ষিন আফ্রিকার হয়ে হেনরিখ ক্লাসেনের দুর্দান্ত সেঞ্চুরির ওপর ভর করে দক্ষিণ আফ্রিকা ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ৩৯৯ রান করে।

ক্লাসেন ৬৭ বলে ১০৯ রান করেন, যার মধ্যে ছিল ১২টি চার ও চারটি ছক্কা।

মার্কো জ্যানসেন ৪২ বলে ৭৫ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন, এবং ওপেনার রিজা হেনড্রিকস আদিল রশিদের বলে আউট হওয়ার আগে ৮৫(৭৫) করেন।

আইসিসি বিশ্বকাপ, ২০২৩ -এ এরকম আরও টুইস্ট প্রয়োজন

বড় দলের বিশাল ব্যবধানে জেতা, অনুমানযোগ্য ফলাফল যেকোনো বিশ্বকাপকেই রোমাঞ্চহীন করে তুলতে পারে।

তবে আফগানিস্তান ও ইংল্যান্ডের, অথবা দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম নেদারল্যান্ডস -এর মতো ম্যাচে সর্বদা একটি পূর্বনির্ধারিত উপসংহার নিশ্চিত করলে সেক্ষেত্রে খেলার রোমাঞ্চও অনেকটাই কমে যায়।

এখন আমাদের কাছে একটি নিশ্চিত উপায় হল ঘনিষ্ঠ প্রতিযোগিতা। যা যেকোনো বিশ্বকাপের ম্যাচেই কিছুটা রোমাঞ্চ তৈরি করে।

একারণেই আইসিসি বিশ্বকাপ -এর মতো টুর্নামেন্টে আমাদের এরকম একটি অথবা দুটি নয়, আরও অনেক টুইস্ট প্রয়োজন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *