আম্বাতি রায়ডু ব্যক্তিগত কারণে ছেড়েছেন সিপিএল টুর্নামেন্ট

Home » আম্বাতি রায়ডু ব্যক্তিগত কারণে ছেড়েছেন সিপিএল টুর্নামেন্ট

সম্প্রতি চলমান রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজের অন্যতম ঘরোয়া ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল)। উক্ত টুর্নামেন্টে অংশ নিয়েছিল ভারতের ক্রিকেটার আম্বাতি রায়ডু । কারণ হিসেবে জানা গিয়েছে তিনি তার ব্যক্তিগত কিছু কারণে ক্যারিবিয়ান লিগ থেকে বিদায় নিয়েছেন। আম্বাতি রায়ডুর হটাৎ সিপিএল থেকে প্রস্থান সম্পর্কে বিস্তারিত থাকছে আজকের পর্বে।

ভারতের জাতীয় দলের হয়ে ২০১৩-২০১৯ সাল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলেছেন আম্বাতি রায়ডু। আম্বাতি রায়ডু ছিলেন ভারতের মিডল অর্ডারে খেলা ব্যাটসম্যান। জাতীয় দলের হয়ে তিনি ওডিআই খেলতেন বেশিরভাগ। তিনি তার ক্যারিয়ারে এই পর্যন্ত ৫৫টি ওডিআই ম্যাচ খেলেছেন এবং সংগ্রহ করেছেন সর্বমোট ১৬৯৪ রান। তিনি তার ক্যারিয়ারে করেছেন ৩টি শতক এবং ১০টি অর্ধ শতক। জাতীয় দলের হয়ে ওডিআই ক্রিকেট তার সর্বোচ্চ স্কোর ছিল ১২৪।

২০১৯ সালে আইপিএলে নিজেদের পঞ্চম শিরোপা জিতেছিল চেন্নাই সুপার কিংস দল। যেখানে বিশেষ ভূমিকা ছিল আম্বাতি রায়ডু এর।

ঘরোয়া লিগ আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসকে শিরোপা জেতানোর পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করেন তিনি।

তিনি হচ্ছেন ভারতের দ্বিতীয় ক্রিকেটার যিনি ক্যারিবিয়ান লিগে খেলতে এসেছেন।

সিপিএলে আম্বাতি রায়ডু এর অংশগ্রহণ

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে আম্বাতি রায়ডু এবার নাম লিখিয়েছিল সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের হয়ে। তবে এই মৌসুমে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের হয়ে আহামরি ভালো পারফরম্যান্স দেখাতে পারেননি ভারতের এই ব্যাটসম্যান। ক্যারিবিয়ান লিগে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের হয়ে তিনি খেলেছেন তিনটি ম্যাচ, যেখানে আম্বাতি রায়ডু মোট ৪৭ রান সংগ্রহ করেন।

স্ট্রাইক রেট হচ্ছে ১১৭.৫০, যেটি তার মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটারের সাথে যাওয়ার নয়।

এক সময় ভারতের মিডল অর্ডারে নিজের জায়গা ধারাবাহিক রেখেছিলেন আম্বাতি রায়ডু।

এরপর আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়েও বেশ ভালো খেলেছেন।

২০২৩ সালে এসেছেন সিপিএল টুর্নামেন্ট খেলার জন্য, কিন্তু আশানুরূপ সাফল্য অর্জন করতে ব্যর্থ করেছেন এই তারকা।

আম্বাতি রায়ডুর মতই এবারের সিপিএল আসরে ব্যর্থ প্যাট্রিয়টস দল।

কেননা সিপিএল আসরে এখন পর্যন্ত খেলা ছয়টি ম্যাচের একটিতেও জয় পায়নি তারা।

৪ ম্যাচে হেরেছিল প্যাট্রিয়টস, যেখানে ২টি ম্যাচ বাতিল করা হয়েছিল।

সিপিএল ২০২৩ পয়েন্ট টেবিলে শূন্য পয়েন্টের সাথে সবার শেষে অবস্থান করছে ২০২১ সালে ক্যারিবিয়ান লিগে চ্যাম্পিয়ন হওয়া দলটা।

আম্বাতি রায়ডু এর আকস্মিক প্রত্যাহার এবং অনুমান

সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের হয়ে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে নাম লিখিয়েছিল আম্বাতি রায়ডু। কিন্তু মাত্র তিন ম্যাচেই দলের হয়ে খেলতে নেমেছিলেন এক ক্রিকেটার। যেখানে মূল ফর্মে ছিলেন না তিনি।

বর্তমান মৌসুমের সবচেয়ে অসফল দল প্যাট্রিয়টস, কারণ তারা এখনও পর্যন্ত কোনো ম্যাচ জিততে পারেনি সিপিএল ২০২৩ মৌসুমে।

ঠিক এই মুহূর্তে এসে ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে সিপিএল থেকে সরে গেলেন রায়ডু।

তবে আকস্মিক প্রত্যাহারের পূর্বে তিনি বলেন, “আমার পূর্ব প্রতিশ্রুতি ছিল, তাই আমি শুধুমাত্র ২৮শে আগস্ট পর্যন্ত সিপিএলে খেলতে রাজি হয়েছিলাম।

এখন আমার সে চুক্তি শেষ হয়েছে।” চুক্তি শেষে এমন মন্তব্য প্রকাশ করে সরে গেলেন সিপিএল ২০২৩ আসর থেকে।

আম্বাতি রায়ডু এর প্রত্যাবর্তন এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের হয়ে ওডিআই ম্যাচে অংশ নিতেন রায়ডু। যদিও তার পুরো ক্রিকেট ক্যারিয়ার ছিল সীমিত। তিনি তার ক্যারিয়ারকে বেশিদূর এগিয়ে নিয়ে যাননি। জাতীয় দলে ছিলেন কেবল ৫-৬ বছর পর্যন্ত।

তবে এই অল্প সময়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারতের হয়ে মিডল অর্ডারে নিজের সামর্থ্য প্রমাণ করেছেন তিনি।

২০১৯ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর ২০২৩ সালে আম্বাতি অবসর নিয়ে নেন ঘরোয়া লিগ আইপিএল থেকে।

২০২৩ মৌসুমে চেন্নাই সুপার কিংস দল তাদের ষষ্ট শিরোপা জয় করেছে। তার ঠিক পরই হটাৎ অবসরের ঘোষণা দেন তিনি।

রায়ডুর ক্রিকেট নিয়ে ভবিষ্যতে কি পরিকল্পনা আছে সেটা এখনো পরিষ্কার জানাননি তিনি।

তবে সিপিএল আসরে তাকে হয়তোবা আবারও দেখা যেতে পারে। তবে এর কোনো নিশ্চয়তা নেই।

দল এবং টুর্নামেন্টের উপর প্রভাব

রায়ডুর দল সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের সময়টা খারাও যাচ্ছে ক্যারিবিয়ান লিগ ২০২৩ মৌসুমে। ৬ ম্যাচের একটিতেও জয় না পাওয়া তাদের রীতিমত হতাশার মধ্যে ফেলেছে।

এমন সময় রায়ডুর দল থেকে বিদায় নেওয়া দলের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

যদিও ক্যারিবিয়ান লিগের তিন ম্যাচে রায়ডু তার সেরা ফর্ম দেখাতে পারেনি।

তবে দলের খারাপ সময়ে রায়ডুর মত খেলোয়াড় দলকে কামব্যাক করার ক্ষেত্রে সাহায্য করতো।

আর তাই ক্যারিবিয়ান লিগ থেকে হটাৎ করে প্রস্থান করা প্যাট্রিয়টসের জন্য মোটেও ভালো সংবাদ নয়।

ক্রিকেট সম্প্রদায় থেকে সমর্থন

ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট লিগ থেকে চুক্তি সম্পন্ন হওয়ার পর সরে যাওয়াতে ক্রিকেট সম্প্রদায়ের অনেকে বিষয়টি অন্যভাবে দেখছে। রায়ডু এর ভক্তরা এই বিষয়টি নিয়ে মোটেও খুশি নয়।

কারণ ব্যাট হাতে তাকে ২২গজের মঞ্চে দেখতে চেয়েছিল ভক্তরা।

রায়ডু এর সিপিএল উপস্থিতিতে অনেক ভারতীয় ক্রিকেট ভক্তরা সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসের সাপোর্ট করছিলেন।

এটি থেকেই নিশ্চিন্তে বলা যায় ক্রিকেট ভক্তদের কাছে রায়ডু এর হটাৎ প্রস্থানের বিষয়টি গ্রহণযোগ্য ছিলনা।

যদিও দলীয় ম্যানেজমেন্ট তার সিদ্ধান্তকে গ্রহন করেছে।

যেহেতু এটি একটি চুক্তি ছিল যে রায়ডু ২৮ আগস্ট পর্যন্ত ক্যারিবিয়ান লিগে খেলবেন সেহেতু চুক্তি শেষ হওয়ায় তারা এই বিষয়টি গ্রহণ করেছে।

ব্যক্তিগত কারণ থাকায় ক্রিকেট সম্প্রদায় থেকে তার সিদ্ধান্তে এসেছে সমর্থন।

ক্যারিবিয়ান লিগের বিগত ইতিহাস

ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট লিগ শুরু হয়েছিল ২০১৩ সালের দিকে। প্রতিবছর ওয়েস্ট ইন্ডিজে টি টোয়েন্টি ফরমেটে আয়োজন করা হয় এই ক্রিকেট টুর্নামেন্টের। ক্যারিবিয়ান লিগে অংশ নিয়ে থাকে সর্বমোট ছয়টি দল।

যেখানে ক্যারিবিয়ান লিগের সবচেয়ে সফল দল হচ্ছে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স, যারা ৪টি সিপিএল শিরোপা জিতেছে এই পর্যন্ত।

আসরের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ শিরোপা জিতেছে জ্যামাইকা তালাওয়াহস। এছাড়াও সবশেষ মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন হওয়া দল তারা।

বার্বাডোজ রয়্যালস জিতেছে এখন পর্যন্ত ২টি ক্যারিবিয়ান শিরোপা এবং সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টস জিতেছে একটি শিরোপা।

২০১৩ সালের পর থেকেই নিয়মিতভাবে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে এই ক্যারিবিয়ান ক্রিকেট লিগ। আর তাই সিপিএল টুর্নামেন্টকে ঘিরে উন্মাদনার কোনো কমতি নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *