এশিয়া কাপের আগেই ওডিআই রাঙ্কিং এর শীর্ষে পাকিস্তান?

Home » এশিয়া কাপের আগেই ওডিআই রাঙ্কিং এর শীর্ষে পাকিস্তান?

কাল থেকে শুরু হচ্ছে এশিয়া কাপ ২০২৩। প্রথম ম্যাচই পাকিস্তানের। তার আগে ওডিআই রাঙ্কিং-এ নাম্বার ওয়ান টিম হিসেবে উঠে এলো তাঁরা।

আইসিসি ওডিআই রাঙ্কিং

আফগানিস্তানের সিরিজ শেষে ওডিআই রাঙ্কিং-এ শীর্ষস্থান নিয়েছে পাকিস্তান। এশিয়া কাপে ২০২৩-এ নাম্বার ওয়ান টিম হিসেবেই খেলবে পাকিস্তান।

২২শে থেকে ২৬শে অগাস্ট পর্যন্ত চলা সিরিজে আফগানিস্তানকে হারিয়ে শীর্ষে উঠে এসেছে পাক টিম। দ্বিতীয় স্থানে আছে অস্ট্রেলিয়া।

দুই দেশেরই পয়েন্ট ১১৮, তবে ম্যাচসংখ্যা বেশি হওয়ার জন্য শীর্ষে পাকিস্তান। ১১৪ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে আছে ভারত।

ওডিআই রাঙ্কিং এ প্রথমবার শীর্ষস্থান দখল

আইসিসির রেকর্ড অনুযায়ী এই প্রথমবার এই সাফল্য পেলো পাকিস্তান। বাবর আজমের নেতৃত্বেই এলো এই সাফল্য।

১৯৯১-এর আগস্টে ও ওডিআই রাঙ্কিং-এ পাকিস্তান এক নম্বর হওয়ার দাবি থাকলে ও সেই দাবির কোনো স্বীকৃত প্রমান নেই।

ডেভিড কেন্ডিক্সের ফর্মুলা মেনে আইসিসি সব টিম গুলির ওডিআইরাঙ্কিং নির্ধারণ করে। ২০০৫ থেকে এই নিয়ম শুরু হয়েছে।

অতীতে ওডিআই রাঙ্কিং-এ পাকিস্তানের সর্বোচ্চ স্থান ছিল তৃতীয়। অস্ট্রেলিয়াকে টপকে পাকিস্তানের সাফল্য তাই ঐতিহাসিক।

এশিয়া কাপে কি সুবিধা পাবে পাকিস্তান?

এশিয়া কাপের আগে পাকিস্তানের এই সাফল্য নিঃসন্দেহে টিমের মনোবল বাড়াবে। যদি ভারত কাপ জেতে তবেই একমাত্র শীর্ষস্থান হারাবে পাকিস্তান।

ওডিআই রাঙ্কিং-এ নম্বর ওয়ান টিম হিসেবে কাপ খেলতে নামা পাকিস্তানকে কাপের অন্যতম দাবিদার করে তুলেছে।

এই সিরিজ খেলা ও হয়েছে শ্রীলংকাতেই ফলে এশিয়া কাপে পরিচিত পরিবেশের বাড়তি সুবিধা ও পেতে পারে পাক টিম।

কী বলছেন পাক ক্যাপ্টেন?

বাবর আজমের মতে, আফগানিস্তানের স্পিন বোলিং খুবই শক্তিশালী তাই ওদের হারানোটা এতো ও সোজা ছিল না। এই জয় তাদের এশিয়া কাপে সাহায্য করবে।

আজম জানিয়েছেন, ফ্যানেদের আরো ভালো ক্রিকেট উপহার দিতে চান তাঁরা। এই জয়ের পুরো কৃতিত্বই টিম এবং সাপোর্ট স্টাফদের দিয়েছেন তিনি।

কেমন ছিল আফগানিস্তান সিরিজ?

সিরিজের প্রথম ম্যাচেই বোলিংয়ের গুনে ১৪২ রানে ম্যাচ জেতে পাকিস্তান। হাড্ডাহাড্ডি দ্বিতীয় ম্যাচে ও জেতে এক উইকেটে।

তৃতীয় ম্যাচে ৫৯ রানে বিপক্ষকে হারিয়ে সিরিজ জেতে পাকিস্তান। বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ানের হাফ সেঞ্চুরিই ম্যাচের ভাগ্য ঠিক করে দেয়।

সাদাবের তিন উইকেট ও পাকিস্তানের হোয়াইটওয়াশের এবং ওডিআই রাঙ্কিং-এর পেছনে বড়ো ভূমিকা নিয়েছে।

পিসিবির চেয়ারম্যান জাকা আশরাফ স্বভাবতই ওডিআই রাঙ্কিং-এ পাকিস্তানের এই সাফল্যে খুশি।

এই জয় আসলে পাক টিমের একতা, একাগ্রতা ও কঠোর পরিশ্রমেরই ফসল বলে জানিয়েছেন তিনি। এই সম্মান গোটা পাক ক্রিকেট বোর্ডের।

ক্রিকেট দুনিয়ায় পাকিস্তানের এই সম্মান অর্জনের জন্য আশরাফ কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন সবাইকে।

কেমন ছিল পাক টিমের আগের পারফরমেন্স?

গত ২০২২ থেকেই ওডিআই রাঙ্কিং-এ পাকিস্তানের স্থান ওপরের দিকেই। একটানা দাপটের সাথে খেলেছে পাক টিম।

ঘরের মাঠে ওয়েস্টইন্ডিজ ও বিদেশে নিউজিল্যান্ডকে ৩-০ এ সিরিজ হারায় বাবর আজমের টিম।

এবছর জানুয়ারীতে আবার ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ড সিরিজে ২-১ এ জেতে পাকিস্তান। এপ্রিলে আবার পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ৪-১ এ জেতে পাক টিম।

সর্বশেষ আফগানিস্তানে ৩-০ জয় স্বাভাবিকভাবেই পাকিস্তানকে নিয়ে আসে ওডিআই রাঙ্কিংয়ের শীর্ষে। সিরিজের আগে দ্বিতীয় স্থানে ছিল পাকিস্তান।

কেমন ভাবে জয় উদযাপন করছে পাকিস্তান?

আফগানিস্তান সিরিজ জিতে ওডিআই রাঙ্কিং-এ শীর্ষস্থান দখল করার পর ড্রেসিং রুমেই কেক কাটেন পাক ক্রিকেটাররা।

আনন্দের মাঝে ও সাবধানী ক্যাপ্টেন আজম। জয়ের আনন্দে ভেসে যেতে নারাজ তিনি। ম্যাচের পরই সহ-খেলোয়াড়দের উদ্দেশ্যে পেপ টক দেন।

ওডিআই রাঙ্কিং-এর কথা না ভেবে এশিয়া কাপে মন দেওয়ার পরামর্শই দিয়েছেন পাক ক্যাপ্টেন।

এক সপ্তাহের মধ্যেই এশিয়া কাপে পাকিস্তানের প্রথম ম্যাচ। বিপক্ষ প্রিমিয়ার কাপজয়ী নেপাল।

এশিয়া কাপে একই গ্রুপে আছে ভারত পাকিস্তান, ২রা সেপটেম্বর গ্রুপ স্টেজের ম্যাচ, স্বভাবতই তার আগে সাবধানী পাক ক্যাপ্টেন।

এবার এশিয়া কাপের অন্যতম আয়োজক দেশ পাকিস্তান. ঘরের মাঠে খেলার সুবিধা ও পাবে তাঁরা।

পাক টিমের এখন শুধু লক্ষ্য যাতে পঁচা শামুকে পা না কাটে। ওডিআই রাঙ্কিংয়ের উচ্ছাসে ভাসতে তাই নারাজ তাঁরা।

ওডিআই রাঙ্কিং এর সাফল্য কি বিশ্বকাপে ও এগিয়ে রাখবে পাকিস্তান কে?

এশিয়া কাপ শেষ হওয়ার এক মাসের মধ্যে ভারতের মাটিতে বসবে বিশ্বকাপের আসর।

যদি পাকিস্তান এশিয়া কাপ জেতে তবে ওডিআই রাঙ্কিং-এ শীর্ষস্থান আরো দীর্ঘস্থায়ী হবে। নম্বর ওয়ান টিম হিসেবেই বিশ্বকাপ ও খেলতে পারে।

শীর্ষে থেকে বিশ্বকাপ খেলতে নামা যেকোনো টিমকেই বাড়তি অক্সিজেন যোগায়। প্রসঙ্গত ২০১১ বিশ্বকাপে ভারত ও খেলেছিল ওডিআই রাঙ্কিং-এর শীর্ষে থেকে।

ভারতের জন্য কি কঠিন হতে চলেছে এশিয়া কাপের সফর?

ভারত পাকিস্তান ম্যাচ মানেই হাইভোল্টেজ। সাধারণ সমর্থক বা ক্রিকেটার, যুযুধান দুই পক্ষের কেউই কাউকে এক ইঞ্চি ও জমি ছাড়েন না।

এশিয়া কাপে শ্রীলংকার মাটিতে ভারতের সফর শুরুই হচ্ছে পাকিস্তানের বিপক্ষে। রেকর্ড বলছে, আজ পর্যন্ত ভারত – পাক ম্যাচে ভারতই জিতেছে বেশিবার।

তবে এবার ম্যাচ সত্যিই পাকিস্তানের অনুকূলে এবং এর কারণ একমাত্র ওডিআই রাঙ্কিং না।

ভারতই বহুদিনই পাকিস্তানের সাথে সিরিজ খেলে না, ফলে বিপক্ষের শক্তি সম্বন্ধে খানিক অন্ধকারেই থাকবে ভারতীয় টিম।

ভারত পাকিস্তান শেষবার মুখোমুখি হয়েছিল গতবছর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে। ম্যাচ জিতে ফাইনালে উঠেছিল পাকিস্তান।

প্রায় সেই একই টিম নিয়েই ওডিআই রাঙ্কিংয়ের শীর্ষে এসেছে পাকিস্তান। এখন দেখার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পুনরাবৃত্তি এশিয়া কাপে হয় কি না।

পাকিস্তানের এই সাফল্য আশা জাগিয়েছে সমর্থকদের মনে ও। ১৯৯২-এর পর দ্বিতীয় বার কাপ পাকিস্তানে আসে কি না, সেটাই দেখার অপেক্ষা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *