এশিয়া কাপ ২০২৩ টিএনটি স্পোর্টস দ্বারা সম্প্রচার করা হবে

Home » এশিয়া কাপ ২০২৩ টিএনটি স্পোর্টস দ্বারা সম্প্রচার করা হবে

এশিয়া কাপ ২০২৩ ক্রিকেট টুর্নামেন্টকে কেন্দ্র করে চলছে শেষ মুহূর্তের সকল প্রস্তুতি। TNT SPORTS এশিয়া কাপ ২০২৩ এর খেলা যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডে সম্প্রচারের অধিকার নিশ্চিত করেছে ইতিমধ্যে। যেটি যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডের জন্য এশিয়া কাপের হাই ভোল্টেজ ম্যাচগুলো দেখার মত একটি বড় সৌভাগ্য তৈরি করে দিয়েছে।

TNT Sports এর এশিয়া কাপ সম্প্রচার এবং এশিয়া কাপের বিস্তারিত থাকছে আজকের পর্বে।

এশিয়া কাপ ২০২৩ টুর্নামেন্টের ম্যাচগুলো সরাসরি সম্প্রচার করার জন্য TNT SPORTS ডিজনি স্টারের সাথে একটি চুক্তিতে পৌঁছেছে, যেখানে তারা এশিয়া কাপের ম্যাচগুলো সরাসরি প্রকাশ করবে যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডে।

যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট ভক্তদের দীর্ঘসময় থেকে আকাঙ্খা ছিল এশিয়া কাপে ভারত, পাকিস্থানসহ বাকি বড় বড় দলগুলোর মধ্যকার লড়াই সরাসরি টিভিতে দেখার।

অবশেষে সকল বিতর্ক সত্যি করে TNT Sports কতৃক তাদের সেই স্বপ্ন পূরণ করা হবে।

যেখানে ইতিমধ্যেই TNT Sports চুক্তিবদ্ধ হয়েছে যে তারা ইউকে এবং আয়ারল্যান্ডে এশিয়া কাপ ২০২৩ সম্প্রচার করবে।

৩০ আগস্ট থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত TNT Sports এশিয়া কাপের ষোলোতম সংস্করণের খেলা দেখাবে।

TNT SPORTS এবং তাদের ব্রডকাস্টিং পরিসর

TNT SPORTS হচ্ছে একটি স্পোর্টস মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম।

এই স্পোর্টস মিডিয়া যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডের পেইড টেলিভিশন স্পোর্টস চ্যানেলগুলির একটি গ্রুপ।

TNT SPORTS এর চ্যানেলগুলি যুক্তরাজ্যের বিটি টিভি, স্কাই এবং ভার্জিন মিডিয়া নামক টেলিভিশন প্ল্যাটফর্মগুলোতে উপলব্ধ আছে।

অন্যদিকে, আয়ারল্যান্ডের স্কাই এবং ভোডাফোন টিভিতে দেখতে পাওয়া যায় এই স্পোর্টস চ্যানেল।

দুটি দেশের একটি স্পোর্টস গ্রুপ মিলে পরিচালিত এই স্পোর্টস মিডিয়া বেশ জনপ্রিয় বিভিন্ন স্পোর্টস রিপোর্টিং করার ক্ষেত্রে।

TNT SPORTS এর অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল আছে যেটির নাম ‘TNT Sports’, যাদের সাবস্ক্রাইবার সংখ্যাটা পাঁচ মিলিয়নের খুবই নিকটে। TNT SPORTS প্রিমিয়াম লিগ, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, উয়েফা ইউরোপা লিগ, উয়েফা কনফারেন্স লিগ, গ্যালাঘের প্রিমিয়ারশিপ, হেইনেকেন চ্যাম্পিয়ন্স কাপ, ইপিসিআর চ্যালেঞ্জ কাপ, মোটোজিপি, ক্রিকেট, ইউএফসি, বক্সিং সহ বিভিন্ন ধরনের স্পোর্টস শো সম্প্রচার করে থাকে তাদের মিডিয়ায়।

ইতিপূর্বে বিটি স্পোর্টস নামেই বেশ পরিচিত ছিল যুক্তরাজ্যের এই স্পোর্টস মিডিয়া চ্যানেলটি।

অবশেষে, এশিয়ার বড় টুর্নামেন্ট এশিয়া কাপ ক্রিকেট সম্প্রচার করবে পূর্বে বিটি স্পোর্টস খ্যাত TNT SPORTS।

এশিয়া কাপ ২০২৩: এশিয়ার ঐতিহাসিক ক্রিকেট টুর্নামেন্ট

এশিয়া কাপ টুর্নামেন্টটি এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল কতৃক আয়োজিত এশিয়ার সবচেয়ে বড় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট। প্রতি বছরই অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে এশিয়ার জনপ্রিয় এই টুর্নামেন্ট।

প্রথমবারের ন্যায় এশিয়া কাপে নেপাল সুযোগ পেয়েছে ইমার্জিং কাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মাধ্যমে, যেটি টুর্নামেন্টে দিয়েছে নতুনত্ব।

এছাড়াও প্রত্যেক দলের আইকনিক খেলোয়াড়দের ম্যাচে জেতার লড়াই এশিয়ার ক্রিকেট ভক্তদের চোখের শান্তি দেবে।

ভারতের বিরাট কোহলি, পাকিস্থানের বাবর আজম ও রিজওয়ান জুটি, ২০২২ আসরে সর্বোচ্চ উইকেট শিকার করা বোলার শ্রীলঙ্কার ওয়ানিন্দু হাসরাঙ্গা, আফগানিস্থানের রশিদ খান, বাংলাদেশের সাকিব আল হাসান ও নেপালের সন্দীপ লামিছানেদের একে অপরের সাথে শিরোপা জেতার যুদ্ধ দেখা যাবে এই টুর্নামেন্টে।

যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট ভক্তদের তাইতো স্বস্তি TNT SPORTS এর এমন উদ্যোগে।

অবশেষে তারাও টিভিতে সরাসরি দেখতে পারবে এশিয়ার জনপ্রিয় ক্রিকেট আইকনদের মধ্যকার লড়াই।

যেখানে অন্যতম হাই ভোল্টেজ ম্যাচে মুখোমুখি ২ সেপ্টেম্বর মুখোমুখি হচ্ছে ভারত ও পাকিস্থান দুই ক্রিকেট জায়েন্ট।

ম্যাচটি সরাসরি দেখার অপেক্ষায় নিশ্চয় পথ চেয়ে যুক্তরাষ্ট্র এবং আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট আগ্রহীরা।

ম্যাচ সম্প্রচারের দুর্দান্ত অধিকার প্রাপ্তি: প্রভাব এবং কারণ

এশিয়ার কাপের মত বড় টুর্নামেন্টের ম্যাচ সম্প্রচারের দুর্দান্ত অধিকার প্রাপ্তি নিঃসন্দেহে ক্রিকেট ভক্তদের মনে ক্রিকেটের প্রতি আশা বাড়িয়ে দেয়। আয়ারল্যান্ড দল আন্তর্জাতিক পরিসরে তাদের দলকে এখনও তেমনভাবে তুলে ধরতে পারেনি। তবে আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য এটি একটি দুর্দান্ত অভিজ্ঞতা যে তারা এশিয়া কাপের বড় বড় সব ক্রিকেট জায়ান্টদের ম্যাচ সরাসরি দেখার সুযোগ পাবে।

একইভাবে যুক্তরাজ্যের ক্রিকেট প্রেমীদের কাছেও এর ইতিবাচক প্রভাব পড়বে বলে আশা করা যায়।

এশিয়া কাপের ম্যাচগুলো সরাসরি যুক্ত যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট প্রেমীদের কাছে দেখার সুযোগ করে দেওয়ার জন্যই TNT SPORTS এই অধিকার নিশ্চিতকরণ।

যেটির দুর্দান্ত প্রভাব পড়তে যাচ্ছে এশিয়া কাপ টুর্নামেন্ট দেখার অপেক্ষায় থাকা ক্রিকেট আগ্রহীদের কাছে।

ক্রিকেট অনুরাগীদের উপর প্রভাব | এশিয়া কাপ ২০২৩

বিশ্বে যত ধরনের খেলা রয়েছে তার মধ্যে ক্রিকেট নিসন্দেহে অন্যতম একটি খেলা।

ক্রিকেট ম্যাচে থাকেন বাহ্যিক কোনো বিষয় নিয়ে তর্ক বা ঝামেলা।

আর তাইতো ক্রিকেটকে বলা হয় ভদ্রলোকের খেলা। আর এক ভদ্রলোকদের খেলার প্রতিই খেলোয়াড়দের রয়েছে যত আবেগ।

পুরো পৃথিবীতে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ক্রিকেট প্রেমীরা।

আর তাই TNT SPORTS এর যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট ভক্তদের মাঝে এশিয়া কাপ খেলা দেখার ব্যবস্থা করার ব্যাপারটি নজর কেড়েছে ক্রিকেট অনুরাগীদের। যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডে ম্যাচের সম্প্রচার নিশ্চিত করার পর থেকেই আনন্দ মিছিল শুরু হয়েছে দেশদুটির ক্রিকেট প্রেমীদের মাঝে।

এশিয়া কাপের মতো বড় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট ক্যাপচার করার ফলে লক্ষের পরবর্তী পর্যায়ে পৌঁছে যেতে পারে TNT SPORTS।

এশিয়া কাপ ২০২৩ দর্শকের অভিজ্ঞতা এবং উদ্ভাবন কেমন হবে?

TNT SPORTS মিডিয়ার এশিয়া কাপ সম্প্রচার যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য একটি উত্তেজনাপূর্ণ উন্নয়ন। ছয় গ্রুপ পর্বের ম্যাচগুলো শুরু হবে পাকিস্তানে।

উদ্বোধনী ম্যাচে ঘরের মাঠে নেপালের মুখোমুখি হবে পাকিস্থান দল।

বহুল প্রত্যাশিত ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচটি শ্রীলঙ্কার ক্যান্ডিতে অনুষ্ঠিত হবে।

ম্যাচ সম্পর্কে দর্শকদের অভিজ্ঞতা অনেকটাই সমৃদ্ধ হতে যাচ্ছে।

ইতিপূর্বে ক্রিকেট বিশ্ব এশিয়া কাপের মঞ্চে অনেক ধরনের হাই ভোল্টেজ ম্যাচ উপহার হিসেবে পেয়েছে।

এবারও এর ভিন্ন কিছু হবেনা। তাইতো ক্রিকেট ম্যাচ সম্প্রচারে এগিয়ে স্পোর্টস মিডিয়া দলগুলো।

এটা নিঃসন্দেহে বলা যায় এশিয়া কাপকে কেন্দ্র করে দর্শকদের আগ্রহের কমতি নেই।

অর্থনৈতিক এবং শিল্পের প্রভাব

পূর্বের বিটি স্পোর্টস, বর্তমানের TNT SPORTS যুক্তরাজ্য এবং আয়ারল্যান্ডে এশিয়া কাপ ম্যাচ সম্প্রচারে কেবল ক্রিকেট ভক্তদের মাঝে প্রভাব ফেলেনি বরং দেশের অর্থনৈতিক এবং শিল্পের উপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে।

যদিও দুটি দেশেই অর্থনৈতিক বা শিল্পের দিক থেকে কোনো বাধা নেই।

তবে ক্রিকেট সম্পর্কে স্পোর্টস মিডিয়ার এই উৎসাহ বার্তা দেশের অর্থনৈতিক এবং শিল্পে ইতিবাচক প্রভাব রাখে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *