জয় শাহ কি পিসিবির আমন্ত্রণে ২০২৩ এশিয়া কাপ দেখতে পাকিস্তানে যাবেন?

Home » জয় শাহ কি পিসিবির আমন্ত্রণে ২০২৩ এশিয়া কাপ দেখতে পাকিস্তানে যাবেন?

এশিয়া কাপ ২০২৩ আসরের উদ্বোধনী ম্যাচ শুরু হতে যাচ্ছে পাকিস্থানে। এশিয়া কাপের এই উদ্বোধনী ম্যাচে একে অপরের মুখোমুখি হবে পাকিস্থান ও নেপাল দল। এবার উক্ত উদ্বোধনী ম্যাচ দেখতে বিসিসিআই সেক্রেটারি জয় শাহ কে পাকিস্তানে আমন্ত্রণ জানিয়েছে পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ড পিসিবি।

পিসিবি কতৃক জয় শাহকে দেওয়া এক আমন্ত্রণ নিয়ে শুরু হয়েছে বিভিন্ন ধরনের বিতর্ক। ক্রিকেট দুনিয়ায় নানান আলোচ্য টপিকের মধ্যে একটি হয়ে দাড়িয়েছে পিসিবির জয় শাহকে আমন্ত্রণের ব্যাপারটি। বিস্তারিত থাকছে আজকের পর্বে।

এশিয়া কাপ ২০২৩: শুরু হচ্ছে ১৬তম আসরের খেলা

এশিয়া কাপ টুর্নামেন্ট ২০২৩ এর উদ্বোধনী ম্যাচ শুরু হবে ৩০ আগস্ট বুধবার পাকিস্থান বনাম নেপালের খেলার মধ্য দিয়ে। এশিয়া কাপের এই উদ্বোধনী ম্যাচসহ সর্বমোট ৪টি ম্যাচ পাকিস্থানে অনুষ্ঠিত হবে।

অপরদিকে, দ্বিতীয় হোস্ট দেশ শ্রীলংকায় ফাইনালসহ বাকি ৯ম্যাচের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হবে।

ভারতের নিরাপত্তাজনিত কারণে প্রথমবার এশিয়া কাপে বিভক্ত দুই দেশে হোস্ট করা হবে এশিয়া কাপ ২০২৩।

যেহেতু ভারতীয় দলের পাকিস্থানে খেলার ক্ষেত্রে অনুমতি নেই সেহেতু নিরপেক্ষ ভেন্যু হিসেবে শ্রীলংকায় ভারত বনাম পাকিস্থানের ম্যাচগুলো অনুষ্ঠিত হবে।

এশিয়া কাপে এবার অংশগ্রহণ করবে ছয়টি ক্রিকেট দল, যেখানে প্রথমবারের ন্যায় এসিসি কাপ থেকে নিজেদের এশিয়া কাপের মঞ্চ পর্যন্ত নিয়ে এসেছে নেপাল।

যেটি নেপাল ক্রিকেটের জন্য নিসন্দেহে একটি গৌরবের ব্যাপার হতে যাচ্ছে।

এশিয়া কাপে এবারের অন্যতম হাই ভোল্টেজ ম্যাচ পাকিস্থান বনাম ভারতের মধ্যকার, যেটি শুরু হবে ২ তারিখ।

উদ্বোধনী ম্যাচে নেপালের মুখোমুখি হওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে এই স্বাগতিক দল।

অবশেষে মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে সকলের কাঙ্খিত এশিয়া কাপের উদ্বোধনী ম্যাচ শুরু হবে।

ইতিমধ্যেই ম্যাচের টিকেট বিক্রির কাজ এবং সকল আনুষ্ঠানিকতা কার্যক্রম প্রায় দেশের দিকে।

তবে মুলতানে টুর্নামেন্ট শুরু হওয়ার এক পাক্ষিক বাকি আছে, বিসিসিআই সেক্রেটারি এবং এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সভাপতি জয় শাহকে পাকিস্তান ও নেপালের মধ্যকার উদ্বোধনী ম্যাচে অংশ নিতে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

১৮ আগস্ট শুক্রবার তারিখে পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান জাকা আশরাফ কতৃক বিসিসিআই সদর দপ্তরে পৌঁছেছিল এই আমন্ত্রণের চিঠি।

তবে জয় শাহ এর পাকিস্থান ও নেপালের মধ্যকার উদ্বোধনী ম্যাচে যাওয়া বা না যাওয়া নিয়ে রয়েছে বিভিন্ন বিতর্ক।

অনেকেই বলছেন জয় শাহ আমন্ত্রণ গ্রহণ করে প্রত্যুত্তর দিয়েছেন তিনি পাকিস্থানে যাবেন অবার অনেকে বলছেন তিনি আমন্ত্রণ স্বীকার করেননি।

জয় শাহ এর ভূমিকা এবং তাৎপর্য

অনেকেই জয় শাহ এর সম্পূর্ণ পরিচয় সম্পর্কে অবগত নয়। তিনি একজন ভারতীয় ব্যবসায়ী এবং ভারত জাতীয় ক্রিকেট বোর্ডের একজন ক্রিকেট প্রশাসক। তার আরেকটি বড় পরিচয় তিনি এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি) এর সভাপতি।

ক্রিকেট দুনিয়ায় আসার পূর্বে জয় শাহ টেম্পল এন্টারপ্রাইজের একজন পরিচালক হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। ২০০৪ সালে কৃষি জাতীয় পণ্য দিয়ে শুরু হওয়া এই কোম্পানি শাট ডাউন করা হয় ২০১৬ সালে এসে।

২০০৯ থেকে সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ক্রিকেট, আহমেদাবাদের নির্বাহী বোর্ডের সদস্য হিসাবে কাজ করার পর জয় শাহ ২০১৩ সালে এসে গুজরাট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এর যুগ্ম সম্পাদক হন।

অতঃপর ২০১৫ সালে বিসিসিআই এর ফাইন্যান্স ও মার্কেটিং কমিটির সদস্য হন তিনি।

২০১৯ সালের দিকে তিনি গুজরাট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এর সচিবপদ থেকে অবসর নেন।

এরপরই দেড় বছরের জন্য তাকে বিসিসিআই এর সেক্রেটারি পদে নিয়োগ দেওয়া হয়।

পরবর্তী সময়ে অর্থাৎ ২০২১ সালে তাকে এসিসি সভাপতি পদে নিয়োগ দেওয়া হয়।

এটি ছিল জয় শাহ এর ব্যবসায়িক ক্যারিয়ার থেকে এশিয়ান ক্রিকেটের সভাপতি হওয়া পর্যন্ত পথচলার গল্প।

পিসিবির আমন্ত্রণের কারণ এবং প্রভাব

পাকিস্তান বনাম নেপালের মধ্যকার উদ্বোধনী ম্যাচে পিসিবির জয় শাহকে আমন্ত্রণ জানানোর কারণ ছিল জয় শাহ এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল (এসিসি) এর সভাপতি। যেহেতু এসিসি কতৃক এশিয়া কাপ টুর্নামেন্ট পরিচালিত হয় সেহেতু উদ্বোধনী ম্যাচে এসিসি সভাপতিকে আমন্ত্রণ জানানো এবং তার উপস্থিতি উভয়ই কাম্য।

ইতিমধ্যেই আমন্ত্রণপত্র জয় শাহ বরাবর গিয়েছে। এমনকি জয় শাহ আমন্ত্রণপত্র স্বীকার করেছেন বলে জানা গিয়েছে।

তবে তিনি এটা এখনও বলেননি যে তিনি উদ্বোধনী ম্যাচে উপস্থিত থাকবে কিনা।

তবে পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ড কতৃক শাহকে দেওয়া আমন্ত্রণ জানানোর বিষয়টি ক্রিকেটে ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে।

পিসিবি এটা নিশ্চিত করেছে যে ক্রিকেটে তারা রাজনৈতিক ঝামেলা চায়না।

তবে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল এর সভাপতি হিসেবে পাকিস্থানে যাওয়ার ব্যাপারে জয় শাহ কি সিদ্ধান্ত নেন সেটা এখন দেখার পালা।

তিনি চাইলে আমন্ত্রণ রক্ষা করতে নিজে যেতে পারেন কিংবা কমিটির প্রতিনিধি কাউকে পাঠাতে পারেন।

জয় শাহ এর সফরের সম্ভাবনা ও বিতর্ক

পাক ক্রিকেট বোর্ডের জয়শাহ বরাবর উদ্বোধনী ম্যাচে আমন্ত্রণ জানানোর ব্যাপারে কোনো বিতর্ক চলছে না।

বরং এখানে বিতর্কের বিষয়বস্তু হচ্ছে জয় শাহ এর পাকিস্থানে যাওয়া কিংবা না যাওয়া নিয়ে।

পুরো ঘটনাটি ভারতের পাকিস্থানে খেলতে যাওয়াতে আপত্তি করাকে কেন্দ্র করে আবর্তিত।

দীর্ঘ রাজনৈতিক জটিলতার কারণে এশিয়া কাপে ভারতীয় দলকে পাকিস্থানে যাওয়ার অনুমতি দেয়নি বিসিসিআই।

অতঃপর হাইব্রিড মডেলে দুটি দেশকে হোস্ট করে শুরু হচ্ছে এশিয়া কাপ।

যেখানে উদ্বোধনী ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে পাকিস্থানে। উক্ত ম্যাচে জয় শাহকে আমন্ত্রণ জানানো হয় এশিয়ান ক্রিকেটের রাজা হিসেবে।

তবে রাজনৈতিক জটিলতা এবং বিসিসিআই এর সেক্রেটারি হওয়ার দরুন জয় শাহ এই ব্যাপারে কি সিদ্ধান্ত নেন এই বিষয়ে আছে দ্বন্দ্ব।

জয় শাহ এর কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়ার পূর্বেই পাকিস্থানের কিছু সংবাদ সংস্থা ভুয়া খবর হিসেবে জয় শাহ এর পাকিস্থানে যাওয়ার কথাটি প্রকাশ করে।

যেটি নিয়ে ক্ষুব্ধ রয়েছেন জয়। তিনি বলেন তার এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য না করার পরও কেন তাকে নিয়ে এই ভুয়া খবর ছড়ানো হচ্ছে।

তিনি এটাও বলেন তিনি আমন্ত্রণ গ্রহণ করেছেন কিন্তু তিনি এটাও বলেননি যে তিনি পাকিস্থানে যাচ্ছেন।

এশিয়ান ক্রিকেটের সভাপতি হিসেবে তার যাওয়া উচিত হলেও এখনও এই ব্যাপারে সঠিক সিদ্ধান্ত জানায়নি জয়।

উপসংহার

এশিয়ান ক্রিকেটের উদ্বোধনী ম্যাচে পিসিবি কতৃক এসিসি সভাপতি জয়শাহকে দেওয়া আমন্ত্রণ আপনি কিভাবে দেখছেন সেটি আমাদের মন্তব্য করে জানাবেন। একইসাথে পাক ক্রিকেট বোর্ডের আমন্ত্রণ রক্ষা করতে বা এশিয়ান ক্রিকেটের সভাপতি হওয়ার কারণে জয় শাহ এর উদ্বোধনী ম্যাচে যাওয়া উচিত কিনা সেটিও জানাতে পারেন।

ক্রিকেট নিয়ে বিভিন্ন আপডেট এবং সংবাদ সবার আগে পেতে সাথেই থাকুন। জানুন ক্রিকেটের সকল আপডেট খবর!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *