পাঁচ ভারতীয় ক্রিকেটার যাদের দিকে নজর থাকবে এশিয়াকাপে

Home » পাঁচ ভারতীয় ক্রিকেটার যাদের দিকে নজর থাকবে এশিয়াকাপে

গত ৩০শে সেপ্টেম্বর থেকে পাকিস্তান ও শ্রীলংকায় শুরু হয়েছে এশিয়া কাপ ২০২৩। শনিবার ২রা সেপ্টেম্বর প্রথম ম্যাচ খেলবেন ভারতীয় ক্রিকেটার রা।

চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের সাথেই হবে ভারতের প্রথম ম্যাচ। গ্রুপ স্টেজে ভারতের শেষ ম্যাচ হবে ৪ঠা সেপ্টেম্বর নেপালের সাথে।

গত সপ্তাহেই নির্বাচক অজিত আগারকার ও ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা এশিয়া কাপের টিম ঘোষণা করেন। এবারের টিমে আছে বেশ কিছু চমক।

সতেরো সদস্যের দলে নতুন মুখ তিলক ভার্মা, আবার চোট সারিয়ে ফিরেছেন কে এল রাহুল, শ্রেয়াস আইয়ার, জাসপ্রিত বুমরাহ।

টিম ঘোষণার পর বিতর্ক হয়েছে ভারতীয় ক্রিকেটার যুজবেন্দ্র চাহালের না থাকা আবার সূর্যকুমার যাদবের জায়গা পাওয়া নিয়েও।

নতুন পুরোনোর যুগলবন্দীতেই বানানো হয়েছে এবারের এশিয়া কাপের টিম ইন্ডিয়া স্কোয়াড। আসন্ন বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখেই এমন নির্বাচন।

কার কার দিকে থাকবে বিশেষ নজর?

এশিয়া কাপের ২০২৩ এর টিম ইন্ডিয়া স্কোয়াডে যে পাঁচ ভারতীয় ক্রিকেটারে র দিকে নজর রাখতেই হবে, তাঁরা হলো –

বিরাট কোহলি

আরো একবার ভারতের এই তারকা ব্যাটসম্যানের দিকেই থাকবে নজর। বিশেষ করে সাম্প্রতিক কালে তাঁরই পারফরম্যান্সই বাঁচিয়েছে ভারতকে।

এশিয়া কাপে কোহলি সৃষ্টি করতে পারেন নতুন রেকর্ড। ভাঙতে পারেন সচিন তেন্ডুলকারের ৪৯তম ওডিআই সেঞ্চুরির রেকর্ড।

এই টুর্নামেন্টে কোহলি ছুঁয়ে ফেলতে পারেন ওডিআই তে ১৩০০০ রান। ভারতীয় ক্রিকেটারে র জন্য তা হবে নতুন রেকর্ড।

বাইশ গজে নামলে বরাবরই আক্রমণাত্মক থাকেন কোহলি। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ম্যাচের রেকর্ড ও তাঁর খুবই ভালো।

ভারতের সব ম্যাচেই ভালো ক্রিকেট দেখতে পাওয়ার জন্য নজর রাখতেই হবে বিরাট কোহলির দিকে।

রোহিত শর্মা

ভারতীয় ক্রিকেটে ‘হিটম্যান’ নামেই পরিচিত বর্তমান অধিনায়ক। ক্যাপ্টেন রোহিত ও ব্যাটসম্যান রোহিত দুজনের কাছেই এশিয়া কাপ ভীষন গুরুত্ত্বপূর্ণ।

এশিয়া কাপে ভালো পারফরমেন্স ক্যাপ্টেন হিসেবে তাকে আরো গ্রহণযোগ্য করে তুলবে। আসন্ন বিশ্বকাপে বাড়তি অক্সিজেন ও যোগাবে তাঁকে।

রোহিত এবার ছুঁয়ে ফেলতে পারেন ওডিআই এ ১০০০০ রানের রেকর্ড। স্বভাবতই সমর্থকদের বিপুল প্রত্যাশা তাঁকে নিয়ে।

এবারের এশিয়া কাপ অভিযানে অন্যতম কী-ফ্যাক্টর হচ্ছেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার।

কে এল রাহুল

ভারতের এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান সদ্য চোট সারিয়ে দলে ফিরেছেন। তাঁকে নিয়ে খানিক অস্বস্তি এখনো রয়েই গেছে।

যদি রাহুল শুরু থেকেই ঠিক করে খেলতে পারেন তবে ভারতের মিডল অর্ডার নিয়ে আর কোনো  দুশ্চিন্তা থাকবে না।

পাঁচ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ভারতীয় ক্রিকেটারে র রেকর্ড ১৮ ইনিংসে ৭৫০ রান, একটা সেঞ্চুরি এবং পঞ্চাশটা হাফ সেঞ্চুরি।

এশিয়া কাপে ভারতের নিরাপদে থাকা অনেকটাই নির্ভর করছে কে এল রাহুলের ওপর। তাঁর দিকে নজর থাকবে বিশেষজ্ঞ থেকে সমর্থক সবার।

শ্রেয়াস আইয়ার

চোটের জন্য বহুদিন বাইরে ছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার ও। চার নম্বরে আপাতত ভারতের সবচেয়ে ভরসাযোগ্য নাম শ্রেয়াস আইয়ার।

২০২২ এ ভারতের টপ রান স্কোরার ছিলেন আইয়ার। বহু ম্যাচজয়ের পেছনে সদর্থক ভূমিকা ও ছিল তাঁর।

আইয়াররের পারদর্শীতাই হচ্ছে স্পিন বোলিং খেলায়। শ্রীলংকার পিচ স্পিনের জন্য সেরা, সুতরাং এই পিচে আইয়ারের ব্যাটিংই হবে ভারতের ভাগ্যনির্ধারক।

দীর্ঘদিন পরে দলে ফেরা এই ভারতীয় ক্রিকেটার নিজের পুরোনো ফর্মে ফিরতে পারেন কি না সেদিকে নজর থাকবে সবার।

কুলদীপ যাদব

সাম্প্রতিক ওয়েস্টইন্ডিজ সিরিজে ভালো খেলেছেন কুলদীপ। এশিয়া কাপে ভারতের একমাত্র রিস্টস্পিনার তিনি।

যুজবেন্দ্র চাহালের বদলে বাঁ-হাতি এই স্পিনারের দলে আসাতে ভুঁরু কুঁচকেছেন অনেকেই কিন্তু আপাতত সেরা ফর্মে আছেন কুলদীপ।

টিম ইন্ডিয়া স্কোয়াডে স্পিন বোলিংয়ের পুরোধা হচ্ছেন কুলদীপ। এর আগে ২০১৮ এর এশিয়া কাপে তাঁর পারফরমেন্স ছিল অসাধারণ।

আগেরবার এশিয়া কাপে ছয় ইনিংসে দশ উইকেট নিয়েছিলেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার। গড় রান রেট দিয়েছিলেন ৪.০৮।

শ্রীলংকার পিচ স্পিনের জন্য অনুকূল, এই পিচে কুলদীপ বিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কাছে আতঙ্ক হয়ে উঠতেই পারেন।

দশ ওভারে তাঁর বোলিং ম্যাচের ভাগ্য সম্পূর্ণ ঘুরিয়ে দিতে পারে। এশিয়া কাপে ভারতীয় ক্রিকেটের অন্যতম মুখ হয়ে উঠতে পারেন কুলদীপ।

এই পাঁচজন ছাড়া ও নজর থাকবে আরো অনেক ভারতীয় ক্রিকেটারে র দিকেই।

যেমন নতুন মুখ তিলক ভার্মা, উঠতি তারকা শুভমান গিল, অভিজ্ঞ হার্দিক পাণ্ড্য, রবীন্দ্র জাদেজা, বোলার মোহাম্মদ সিরাজ।

নজর থাকবে সূর্য্যকুমার যাদবের দিকে, টি-টোয়েন্টি এই তারকার ওডিআই রেকর্ড বেশ খারাপ, এশিয়া কাপই তাঁর কাছে সুযোগ নিজেকে প্রমান করার।

সতেরো সদস্যের দলে কোন কোন ভারতীয় ক্রিকেটার শেষ পর্যন্ত নজর কাড়েন, জানা যাবে আজ থেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *