বিরাট কোহলি র আরেকটি বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা বেশি

Home » বিরাট কোহলি র আরেকটি বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা বেশি

বিরাট কোহলি, ভারতীয় ক্রিকেট তারকা, সম্প্রতি সমাপ্ত আইসিসি বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০২৩-এ, টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন।

তিনি ১১ ম্যাচে গড়ে ৭৬৫ রান সংগ্রহ করেন, যার মধ্যে তিনটা সেঞ্চুরি এবং ছয়টি হাফ সেঞ্চুরি ছিল।

এমন দারুণ পারফরম্যান্সের কারণে আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ে এক ধাপ এগিয়ে তৃতীয় স্থানে উঠেছেন এই ভারতীয় ক্রিকেটার। কোহলি রেটিং পয়েন্ট এখন ৭৯১।

বিশ্বকাপে এখনও ১০ ম্যাচে অপরাজিত, কোহলি বিশ্বকাপ স্পর্শ করতে সক্ষম হননি কারণ ভারত অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে রানার্স আপ হয়েছিল।

তার জন্য এখনও কিছু অসম্পূর্ণ রয়ে গেছে

বিরাট কোহলি  নভেম্বরে ৩৫ বছরে পা দিয়েছেন। বিশ্বকাপ শুরুর তিন মাস আগে তাঁকে নিয়ে গেইল বলেছিলেন, “বিরাট কোহলি এখনও আরও একটা বিশ্বকাপ খেলতে পারেন।

আমার মনে হয় না এটা ওর শেষ বিশ্বকাপ। ঘরের মাঠে ভারত ফেভারিট এবং ফলে লড়াইটা হবে দেখার মতো।”

প্রাক্তন ভারতীয় ক্রিকেটার সঞ্জয় বাঙ্গার বিশ্বাস করেন যে কোহলি আরও একটি বিশ্বকাপে খেলবেন। তিনি বলেন, “ব্যক্তিগতভাবে কোহলির যে ধরনের ক্ষুধা আছে, ঈশ্বর তাকে আশীর্বাদ করেছেন।

তার মধ্যে এখনও বিশেষ কিছু অবশিষ্ট আছে। এমনকি শচীনকে তার প্রথম শিরোপা জিততে ৬ টি বিশ্বকাপের জন্য অপেক্ষা করতে হয়েছে।”

সম্প্রতি একটি পোস্ট ভাইরাল হচ্ছে, যাতে দাবি করা হয়েছে যে ভারতীয় ক্রিকেটের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান বিরাট কোহলি ২০২৭ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে খেলবেন।

আজকের নয়, চার বছর আগের পোস্ট এটা। এই পোস্টেই উল্লেখ করা হয়েছে যে পরের বিশ্বকাপে (২০২৭) বিরাট কোহলি আদৌ খেলবেন কি না।

এই পোস্টটি ২০২৩ সালের অক্টোবরে একটি ফেসবুক পেজ “স্টারস অ্যান্ড অ্যাস্ট্রোলজি” থেকে শেয়ার করা হয়েছিল।

পোস্টে বলা হয়েছে, ২০২৫ সালের অগাস্ট থেকে ২০২৭ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কোহলির ফর্ম কিছুটা খারাপ হবে।

তবে ২০২৭ সালের বিশ্বকাপের ঠিক আগে তিনি আবারও তার বিধ্বংসী ফর্মে ফিরে আসবেন।

ওই পোস্টে বলা হয়েছে, “২০২৭ সালে কোহলি তার ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে থাকবেন। ২০২৮ সালের মার্চ মাসে ক্যারিয়ারের সেরা ফর্মে থেকে তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর গ্রহণ করবেন।”

কোহলি সম্প্রতি সমাপ্ত বিশ্বকাপে বেশ কয়েকটি রেকর্ড ভেঙেছেন। তিনি শচীন টেন্ডুলকারের ওয়ানডেতে সর্বাধিক শতরানের রেকর্ডের সমান হয়েছেন।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেমিফাইনালে, কোহলিই প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে 50 ওডিআই সেঞ্চুরি করেন।

কোহলির বয়স এখন ৩৫ বছর। তবে, তার খেলার ধরন এবং ক্ষমতা বিবেচনা করে, তার আরও বেশ কয়েক বছর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার সম্ভাবনা রয়েছে।

যদি কোহলি আরও একটি বিশ্বকাপে খেলেন, তাহলে তা ভারতের জন্য একটি বড় সুসংবাদ হবে। তিনি একজন অভিজ্ঞ এবং দক্ষ ব্যাটসম্যান যিনি বিশ্বকাপে ভারতকে নেতৃত্ব দিতে পারেন।

কোহলির ব্যক্তিগত জীবন

কোহলির জন্ম ১৯৮৮ সালের ৫ নভেম্বর ভারতের দিল্লির একটি পাঞ্জাবি পরিবারে। তার বাবা প্রেম কোহলি একজন ফৌজদারি আইনজীবী ছিলেন এবং তার মা সরোজ কোহলি একজন গৃহিণী।

কোহলি দিল্লির উত্তম নগরে জন্মগ্রহণ করেন এবং বিশাল ভারতী পাবলিক স্কুল এবং সেভিয়ার কনভেন্টে পড়াশোনা করেন। তার একজন বড় ভাই নাম বিকাশ এবং একজন বড় বোন নাম ভাবনা।

বিরাট কোহলির স্ত্রী ও কন্যা

২০১৭ সালে, কোহলি এবং আনুশকা ইতালির ফ্লোরেন্সে একটি অনুষ্ঠানে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন।  বিরাট কোহলি এবং আনুশকা শর্মা দুজনেই ভারতের জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব।

কোহলি একজন বিশ্ববিখ্যাত ক্রিকেটার এবং আনুশকা একজন জনপ্রিয় বলিউড অভিনেত্রী। ১১ জানুয়ারী ২০১৮, কোহলি এবং আনুশকা শর্মা, ভামিকার একটি কন্যার জন্ম হয়।

বিরাট কোহলির ক্রিকেট ক্যারিয়ার

বিরাট কোহলি একজন ভারতীয় ক্রিকেটার যিনি বর্তমানে ভারতীয় জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক।

তিনি একজন ডানহাতি ব্যাটসম্যান এবং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যানদের একজন হিসেবে বিবেচিত।

কোহলির ক্রিকেট ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল ১৯৯৮ সালে যখন তিনি পশ্চিম দিল্লি ক্রিকেট একাডেমিতে যোগ দেন।

তিনি ২০০২ সালে অনূর্ধ্ব-১৫ এবং ২০০৩ সালে অনূর্ধ্ব-১৭দলের হয়ে খেলেন। ২০০৬সালে, তিনি অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে খেলে বিশ্বকাপ জয় করেন।

কোহলির আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছিল ২০০৮ সালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে। তিনি দ্রুতই নিজেকে একজন আন্তর্জাতিক তারকা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন।

তিনি ২০১১ সালে বিশ্বকাপ জয়ী দলের একজন সদস্য ছিলেন এবং বিশ্বকাপ অভিষেকে সেঞ্চুরি করা প্রথম ভারতীয় ব্যাটসম্যান হয়েছিলেন।

কোহলি একজন অত্যন্ত আক্রমণাত্মক ব্যাটসম্যান। তিনি তার শক্তিশালী আক্রমণাত্মক খেলার জন্য পরিচিত।

তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে একাধিক রেকর্ড গড়েছেন। তিনি টেস্ট, ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি রান সংগ্রাহকদের মধ্যে একজন।

কোহলি একজন নেতৃত্বগুণসম্পন্ন খেলোয়াড়ও। ২০১৪ সালে জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক হন। তিনি ভারতকে ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিততে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

বিরাট কোহলি পুরষ্কার এবং সম্মান

বিরাট কোহলি ২০১৩সালে অর্জুন পুরস্কার, ২০১৭ সালে পদ্মশ্রী এবং ২০১৮ সালে রাজীব গান্ধী খেল রত্ন পুরস্কার জিতেছিলেন।

কোহলির ক্রিকেট ক্যারিয়ারের কিছু উল্লেখযোগ্য ঘটনা:

  • ২০০৮ সালে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জয়
  • ২০১১ সালে বিশ্বকাপ জয়
  • ২০১২ সালে আইসিসি ওয়ানডে প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার
  • ২০১৩ সালে আইসিসি টেস্ট প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার
  • ২০১৬ সালে আইসিসি ওয়ানডে প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার
  • ২০১৮ সালে আইসিসি টেস্ট প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার
  • ২০২০ সালে আইসিসি পুরুষ ক্রিকেটার অফ দ্য দশক

সর্বশেষ

উপরের আলোচনা থেকে দেখা যায় যে কোহলির আরও একটি বিশ্বকাপ খেলার সম্ভাবনা রয়েছে।

তবে, এই সম্ভাবনা নির্ভর করে কোহলির নিজের ফর্ম এবং ভারতীয় দলের সাফল্যের উপর।

কোহলি যদি ভারতীয় দলের হয়ে তার ফর্ম ধরে রাখতে পারেন তাহলে কোহলির আরেকটি বিশ্বকাপ খেলার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *