বিরাট কোহলি শচীন টেন্ডুলকারকে পেছনে ফেলে দ্রুততম ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রানে

Home » বিরাট কোহলি শচীন টেন্ডুলকারকে পেছনে ফেলে দ্রুততম ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রানে

ভারতের তারকা বিরাট কোহলি বৃহস্পতিবার বিশ্বকাপ ২০২৩ -এ ভারত বনাম বাংলাদেশ ম্যাচে,  ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রান করা দ্রুততম ব্যাটার হয়েছেন।

বিরাট কোহলি, আধুনিক ক্রিকেটের একজন গ্রেট প্লেয়ার সেবিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

 ভারতের কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারের রেকর্ড ভেঙে তিনি ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্রুততম ব্যাটার হিসেবে ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রান করার রেকর্ড গড়েলেন।

এই ম্যাচের আগে, কোহলির ৫১০টি ম্যাচ খেলে ৫৬৬ ইনিংস খেলে ২৫,৯২৩ রান করেছিলেন।

১৯ শে অক্টোবর, তিনি পুনেতে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বিশ্বকাপে মুখোমুখি হওয়ার সময় একটি ছক্কা মেরে দর্শনীয় ফ্যাশনে এই মাইলফলকটি অর্জন করেছিলেন।

ভারতীয় ক্রিকেট ইতিহাসে সোনার অক্ষরে নিজের নাম লিখে ফেলা বিরাট কোহলি তার অসামান্য ব্যাটিং প্রদর্শনের মাধ্যমে চলমান বিশ্বকাপে নিঃসন্দেহে একটি উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলেছেন।

 অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ভারতের উদ্বোধনী ম্যাচের সময়, তিনি একটি দুর্দান্ত ৮৫ রান সংগ্রহ করেছিলেন এবং আফগানিস্তানের বিরুদ্ধে অপরাজিত ৫৫ রানের মাধ্যমে তিনি তার দুর্দান্ত ফর্ম অব্যাহত রাখেন।

অধিকন্তু, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে শেষ সংঘর্ষে, কোহলি (১০৩*) তার ৪৮তম ওডিআই সেঞ্চুরি অর্জন করে তার শ্রেষ্ঠত্ব প্রদর্শন করেছিলেন।

বিরাট কোহলি এবারে বিশ্বের সর্বকালীন সেরা ব্যাটারদের মধ্যে ২৬,০২৬* রান করে নাম লিখিয়ে নিলেন

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বিরাট কোহলির ২৬,০২৬ রান তার ক্রিকেটীয় দক্ষতার এক প্রত্যক্ষ প্রমাণ।

 যার মধ্যে টেস্টে ৮,৬৭৬ রান, ওয়ানডেতে ১৩,৩৪২ রান এবং টি-টোয়েন্টিতে ৪,০০৮ রান সহ তিনটি ফর্ম্যাটে ৫১০ টি ম্যাচ খেলে তিনি এই রান সংগ্রহ করেন।

এই সাধনায়, তিনি ক্রিকেট ব্যাটারদের  একটি প্রেস্টিজিয়াস ক্লাবে যোগ দেন।

 যেখানে কেবলমাত্র বিরাট কোহলি বাদে আর তিনজন ক্রিকেটারই রয়েছেন।

 ভারতের সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ ব্যাটসম্যান শচীন রমেশ টেন্ডুলকার, শ্রীলঙ্কার কুমার সাঙ্গাকারা এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন ক্যাপ্টেন রিকি পন্টিং।

বাকিদের সংগ্রহ করা রান

ব্যতিক্রমী ক্রিকেটারদের একটি নির্বাচিত ত্রয়ী আন্তর্জাতিক খেলোয়াড়দের এই বিরল রাজ্যে প্রবেশ করার বিশেষাধিকার অর্জন করেছে।

 যারা ২৬,০০০ বা তার বেশি রানের অসাধারণ মাইলফলক অর্জন করেছে।

এই একচেটিয়া গ্রুপের নেতৃত্বে রয়েছেন ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার টেন্ডুলকার।

 যার বিস্ময়কর ৩৪,৩৫৭ রানের দৌলতে, ক্রিকেটের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান হিসাবে তার মর্যাদাকে মজবুত করেছেন।

যার খুবই কাছাকাছি রয়েছেন শ্রীলঙ্কার প্রাক্তন উইকেট কিপার ব্যাটার কুমার সাঙ্গাকারা।

 যিনি তার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে ২৮,০১৬ রান সংগ্রহ করেছিলেন, যা তার অসাধারণ ধারাবাহিকতা এবং দক্ষতার প্রমাণ।

এই বিশিষ্ট তালিকার তৃতীয় প্লেয়ারটি হলেন প্রাক্তন অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক রিকি পন্টিং, যিনি তার অসাধারণ ক্যারিয়ারে ২৭,৪৮৩ রান সংগ্রহ করেছিলেন।

বিরাট কোহলির দ্রুততম ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রান

বিরাট কোহলির ব্যতিক্রমী পারফরম্যান্সের মধ্যে শুধুমাত্র ৯৭ বলে তার অপরাজিত ১০৩ রানই অন্তর্ভুক্ত নয়।

 এটি তার ও ভারতবর্ষের জন্য একটি ঐতিহাসিক মাইলফলকও।

 এই সেঞ্চুরির মাধ্যমে তিনি দ্রুততম ক্রিকেটার হিসেবে ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন।

এই অবিশ্বাস্য কৃতিত্বটি মাত্র ৫১১ ইনিংসে খেলে তিনি অর্জন করেছেন। যার মাধ্যমে তিনি পূর্ববর্তী রেকর্ডধারী, কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকারকেও ৩৩টি ইনিংসে পিছনে ফেলে দিয়েছেন।

বিরাট কোহলির ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রানের যাত্রা তার ব্যতিক্রমী ক্লাস এবং অটল অধ্যাবসায়ের প্রমাণ হিসাবে দাঁড়িয়েছে।

তার দুর্দান্ত ব্যাটিং দক্ষতা, অক্লান্ত পরিশ্রমের নীতি এবং বিভিন্ন ফর্ম্যাটে বহুমুখিতা তাকে অন্যদের থেকে আলাদা করেছে।

টেস্ট ম্যাচ, একদিনের আন্তর্জাতিক, বা টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক, কোহলি ধারাবাহিকভাবে ম্যাচ জয়ী পারফরম্যান্স প্রদান করেছেন।

 যে পারফর্মেন্সগুলি ক্রিকেটের অভিজাত ব্যাটারদের মধ্যে তার অবস্থানকে আরও মজবুত করেছেন।

বিরাট কোহলি, ওয়ানডে বিশ্বকাপে

ওয়ানডে বিশ্বকাপে, বিরাট কোহলি এখন পর্যন্ত ৩০ ম্যাচে ১,২৮৯ রান করেছেন।

তিনি এখন পর্যন্ত ৩টি সেঞ্চুরি করেছেন যেখানে তার বিশ্বকাপে ব্যাটিং গড় ৫৩.৭০।

২০১১ সালে, তার বিশ্বকাপ অভিষেকে, কোহলি বাংলাদেশের বিপক্ষে অপরাজিত ১০০ রান করেছিলেন।

মজার ব্যাপার হল, তার সাম্প্রতিকতম ওয়ানডে বিশ্বকাপে সেঞ্চুরিও (অক্টোবর ১৯, ২০২৩) বাংলাদেশের বিপক্ষেই এসেছে।

২০১৫ সালে, তিনি অ্যাডিলেডে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আরেকটি সেঞ্চুরি করেন।

বিরাট কোহলির ৪৮তম ওয়ানডে সেঞ্চুরি ঘিরে বিতর্ক

বাংলাদেশের বিপক্ষে কিং বিরাট কোহলির সেঞ্চুরি কিছুটা বিতর্কের মুখেও পড়েছে।

ম্যাচের শেষে ওয়াইড বল না দেওয়ার সিদ্ধান্তের পর আম্পায়ার রিচার্ড কেটলবোরো অনেকের কাছেই আলোচনার বিষয়।

বিরাট কোহলি যখন ৯৭ রানে ব্যাট করছিলেন সেসময় নাসুম আহমেদের বোলিংয়ে ভারতের জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ২ রান।

 সীমিত ওভারের ক্রিকেটে যে ডেলিভারি লেগ সাইডের বাইরে চলে যায় তাকে স্বাভাবিক ভাবে ওয়াইড বল বলা হয়। তবে কেটলবোরো এটাকে ওয়াইড বল বলেননি।

বিরাট কোহলির ক্যারিয়ার ব্যাটিং পরিসংখ্যান

ফরম্যাটম্যাচইনিংসরানহায়েস্ট স্কোরঅ্যাভারেজবল খেলেছেনস্ট্রাইক রেট১০০২০০৫০নট আউট
টেসট১১১১৮৭৮৬৭৬২৫৪৪৯.৩১৫৭০৮৫৫.২৩২৯২৯৯৬৬২৪১১
ওডিআই২৮৫২৭৩১৩,৩৪২১৮৩৫৮.০১১৪,২৩৭৯৩.৭১৪৮৬৮১২৪৭১৪৭৪৩
টি-২০১১৫১০৭৪০০৮১২২৫২.৭৪২৯০৫১৩৭.৯৭৩৭৩৫৬১১৭৩১

উপসংহার

বিরাট কোহলির ২৬,০০০ আন্তর্জাতিক রানের যাত্রা তার নিছক ক্লাস এবং অটল প্রতিশ্রুতির প্রমাণ।

তার দুর্দান্ত স্ট্রোকপ্লে, ব্যতিক্রমী ব্যাটিং-এর নীতি এবং বিভিন্ন ফর্ম্যাটে মানিয়ে নেওয়ার ক্ষমতা তাকে অন্যদের থেক আলাদা করেছে।

টেস্ট ম্যাচ, একদিনের আন্তর্জাতিক, বা টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক, কোহলি ধারাবাহিকভাবে ম্যাচ জয়ী পারফরম্যান্স প্রদান করেছেন।

তিনি শুধু রান মেশিনই নন, ভারতীয় দলকে নেতৃত্বও দিয়েছেন তিনি।

বিরাট কোহলির রেকর্ড ও মাইলফলক ক্রিকেটারদের নতুন প্রজন্মকেও অনুপ্রাণিত করে, যা তাকে সত্য করে তোলে ক্রিকেটের আইকন।

যে কারনেই তার ভক্তরা অধীর আগ্রহে এই ক্রিকেটিং কিংবদন্তির থেকে আরো অনেক দর্শনীয় ইনিংস প্রত্যাশা করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *