বিশ্বকাপ ২০২৩ এ ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচের জন্য ভক্তদের ২০০০ কিঃমিঃ ভ্রমণ করতে হবে?

Home » বিশ্বকাপ ২০২৩ এ ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচের জন্য ভক্তদের ২০০০ কিঃমিঃ ভ্রমণ করতে হবে?

বিশ্বকাপ ২০২৩ এর ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচের জন্য ভক্তদের ২০০০ কিলোমিটার ভ্রমণ করতে হবে। এই খবরটি ছড়িয়ে পড়া মাত্রই রীতিমত চলছে বিভিন্ন ধরনের আলোচনা। তবে এই শিরোনামটি কিছুটা ভিন্নভাবে ছড়িয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে। বিস্তারিত থাকছে আজকের পর্বে।

বহুল প্রতীক্ষিত আইসিসি ওডিআই বিশ্বকাপ ২০২৩ মৌসুমের খেলা শুরু হতে বাকি কেবল এক মাস। এক মাসের ব্যবধানে ভারতের আহমেদাবাদে শুভ সূচনা হতে চলেছে আইসিসি ওডিআই বিশ্বকাপের। স্বাগতিক ভারত ছাড়াও বিশ্বকাপের এবারের আসরে অংশ নিচ্ছে আরো নয়টি দল।

বিশ্বকাপের মঞ্চে তারিখ মুখোমুখি হবে ভারত এবং পাকিস্থান। ইতিমধ্যেই এশিয়া কাপের মঞ্চে তাদের মুখোমুখি হওয়ার কথা রয়েছে ১২ সেপ্টেম্বর। তবে বিশ্বকাপের মত বড় মঞ্চে ভারত পাকিস্থানের ম্যাচ মানেই যে বাড়তি উত্তেজনা সেটা নিশ্চই বলার অপেক্ষা রাখে না।

ক্রিকেট ইতিহাসের দুই দাপুটে দল ভারত এবং পাকিস্থান।

দুটি দলের উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হচ্ছে তাদের দলের তরুণ খেলোয়াড়দের দুর্দান্ত ফর্মে থাকে। এক্ষেত্রে দুটি দলের কেউ কাউকে একবিন্দু ছার দিতে রাজি নয়। ভারতের যেমনি আছে দুর্দান্ত শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপ তেমনি পাকিস্থানের আছে বিশ্বমানের পেসার। আর তাই এই দুই দাপুটে দলের মধ্যকার ক্রিকেট ম্যাচ বিশ্বকাপের মঞ্চে দেখার অপেক্ষা নিশ্চই আপনিও করবেন।

তবে এখানেই শুরু হয়েছে যত ভোগান্তি। বিশ্বকাপের টিকেট বিক্রির কাজ শুরু হয়েছিল গত ২৯ আগস্ট থেকে। প্রথম দফার টিকিটগুলো বিক্রি হয়ে যায় মাত্র এক ঘণ্টার ব্যবধানে। এছাড়াও অন্যান্য দফার টিকেটগুলোও ছাড়ার সাথেসাথে বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। এতেই ভোগান্তিতে দর্শকরা।

অনেকেই বিশ্বকাপ ২০২৩ এর ভারত বনাম পাকিস্থানের মধ্যকার ম্যাচ সরাসরি দেখার জন্য স্বশরীরে টিকেট কিনতে যাচ্ছেন। এমন এক অবাক কাণ্ড করেছে কিছু সমর্থক।

ভারত বনাম পাকিস্থানের মধ্যকার বিশ্বকাপের টিকেট কেনার জন্য রীতিমত ভ্রমণ করেছেন ২০০০ কিলোমিটারের অধিক পথ।

যেটি ভাইরাল হয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে।

এতে সাধারণ দর্শকবৃন্দ এটা ভাবছেন যে ভারত এবং পাকিস্থানের ম্যাচের টিকেট কিনতে হলে সবাইকে ২০০০ কিলোমিটার পথ ভ্রমণ করতে হবে।

তবে এমনটি মোটেও সঠিক হয়। যেসব সমর্থক এত দূর গিয়েছিলেন কেবল একটি টিকেট কেনার উদ্দেশ্যে তাদের ফিরতে হয়েছে খালি হাতে।

দ্রুত সময়ে এত টিকেট বিক্রি হয়ে যাওয়ার পিছনে অনেকে ভারতের টিকেট কালোবাজারি সমস্যার কথা বলছেন।

অফিসিয়াল দামে এসব টিকেট কিনে অনেক অসাধু ব্যবসায়ী টিকেটগুলো চওড়া দামে বিক্রি করে থাকে।

মহাকাব্যিক ক্রিকেট প্রতিদ্বন্দ্বিতা: ভারত বনাম পাকিস্তান

ভারত বনাম পাকিস্তানের মধ্যকার ম্যাচ মানেই মহাকাব্যিক এক ক্রিকেট প্রতিদ্বন্দ্বিতা।

এটি শুধু দুটি দেশের ক্রিকেট ভক্তদের জন্য নয় বরং পুরো বিশ্ব ক্রিকেটে ভারত এবং পাকিস্থানের মধ্যকার ম্যাচ নিয়ে আছে উত্তেজনা।

বিশ্ব ক্রিকেট বিগত কয়েক বছরে ভারত এবং পাকিস্থানের মধ্যকার এমন এল ক্লাসিকো দেখেনি।

আর তাই স্বাভাবিকভাবেই বিশ্বকাপের মত বড় মঞ্চে পাকিস্থান এবং ভারতের মধ্যকার ম্যাচটি সরাসরি দেখার অপেক্ষায় থাকবে কোটি ভক্ত।

ভারত পাকিস্থানের মধ্যকার এই এল ক্লাসিকো ক্রিকেট ভক্তদের নিকট যেমনি উত্তেজনার সৃষ্টি করে ঠিক তেমনি উত্তেজনার সৃষ্টি করে ক্রিকেটারদের মাঝে। তারাও এই দিনটির জন্য অপেক্ষায় থাকে।

তবে লড়াইটা কেবল মাঠের মধ্যেই চলমান থাকে, মাঠের বাইরে ক্রিকেটারদের মাঝে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বিরাজ করে।

বিশ্বকাপ সংঘর্ষের গুরুত্ব | বিশ্বকাপ ২০২৩

আইসিসি কতৃক আয়োজিত ওডিআই বিশ্বকাপ ক্রিকেট ইতিহাসের ঐতিহ্যবাহী একটি টুর্নামেন্ট। প্রতি চার বছর অন্তর আয়োজিত হওয়া এই টুর্নামেন্ট এর অপেক্ষায় যেমন দলগুলো মরিয়া হয়ে থাকে তেমনি মরিয়া হয়ে থাকে ক্রিকেট অনুরাগীরা।

প্রতিটি দল বিশ্বকাপে শিরোপা জেতার স্বপ্ন নিয়ে মাঠে নামে। আর তাই মাঠের মধ্যকার এই লড়াইটা অনেক উত্তেজনাপূর্ণ হয়।

এক দল অপর দলকে একবিন্দু ছাড় দিতে রাজি নয়। আর তাই ক্রিকেট আজ এত জনপ্রিয় বিশ্বমঞ্চে।

ক্রিকেটের এমন জনপ্রিয়তার পেছনে বিশ্বকাপে দলগুলোর মধ্যকার সংঘর্ষ একটি কারণ।

ভক্তদের যাত্রা সংক্রান্ত ভোগান্তি | বিশ্বকাপ ২০২৩

সম্প্রতি একটি বড় শিরোনাম হয়ে উঠেছে ভারত বনাম পাকিস্থানের মধ্যকার ম্যাচের টিকেট কিনতে হলে ভ্রমণ করতে হবে ২০০০ কিলোমিটার পথ।

আর এই শিরোনামকে ঘিরেই চলছে যত আলোচনা এবং সমালোচনা।

তবে উপরের পয়েন্টগুলো পড়ে নিশ্চই আপনি পুরো ঘটনা সম্পর্কে অবগত হয়েছেন।

এক্ষেত্রে গুঞ্জন উঠেছে যে ভারত এবং পাকিস্থানের মধ্যকার ম্যাচে টিকেট বেচাকেনায় কালোবাজারি চক্র জড়িত।

তবে এটির প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছে কতৃপক্ষ।

অর্থনৈতিক প্রভাব এবং পর্যটন ব্যবস্থা

বিশ্বকাপে ভারত বনাম পাকিস্থানের এল ক্লাসিকোতে ভারতের অর্থনীতিতে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে।

এছাড়াও এটি পর্যটন পর্যায়ে একটি উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলবে বলে আশা করা যায়।

বিশ্বকাপের স্বাগতিক দেশ ভারত। বিভিন্ন দেশ থেকেই ক্রিকেট ভক্তরা আসবে এই দেশে খেলা উপভোগ করার জন্য।

এক্ষেত্রে তারা খেলা দেখার পাশাপাশি বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান ভ্রমণে নিয়োজিত থাকবে।

যেটি অর্থনৈতিক এবং পর্যটনের বিকাশে প্রভাব ফেলবে।

খেলার বাইরে: কূটনীতি এবং ঐক্য

ভারত এবং পাকিস্থানের মধ্যকার কূটনৈতিক সম্পর্ক অনেক পুরনো। ব্রিটিশ সরকারের আমল থেকেই রাজনৈতিক নানান কারণে দুটি দেশের মধ্যকার সম্পর্ক বৈরী রূপ ধারণ করে। এতে রাজনৈতিক বৈরী সম্পর্ক হানা দেয় ক্রিকেট পর্যন্ত।

তবে বিভিন্ন কারনেই একশ এরর বেশি ম্যাচে দল দুটি মুখোমুখি হয়। বেশিরভাগ ম্যাচগুলো নিরপেক্ষ ভূমিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

তবে বর্তমান ক্রিকেটে দুটি দেশের মধ্যকার বৈরী সম্পর্ক মোটেও বাজে প্রভাব ফেলছে না।

কেননা মাঠের বাইরে দুটি দেশের খেলোয়াড়দের মাঝে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক দেখা যায়।

যেটি প্রমাণ করে ক্রিকেট মূলত ভদ্রলোকের খেলা, এর সাথে রাজনৈতিক সম্পর্ক জড়িত নয়।

ইতিমধ্যেই ভারত এবং পাকিস্থান ক্রিকেট বোর্ড কতৃক তাদের বিশ্বকাপ ২০২৩ এর স্কোয়াড প্রকাশ করা হয়েছে। নিচে ভারত এবং পাকিস্থানের আসন্ন ওডিআই বিশ্বকাপের স্কোয়াডটি দেওয়া হলো।

ভরত এর ২০২৩ ওডিআই বিশ্বকাপ স্কোয়াড

রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শুভমান গীল, বিরাট কোহলি, শ্রেয়াস আইয়ার, ঈশান কিষাণ, কেএল রাহুল, হার্দিক পান্ডিয়া, সূর্যকুমার যাদব, রবীন্দ্র জাদেজা, অক্ষর প্যাটেল, শার্দুল ঠাকুর, জাসপ্রীত বুমরাহ, মোহাম্মদ শামী, মোহাম্মদ সিরাজ, কুলদীপ যাদব।

পাকিস্থান এর ২০২৩ ওডিআই বিশ্বকাপ স্কোয়াড

বাবর আজম (অধিনায়ক), ফখর জামান, ইমাম-উল হক, সালমান আলি আগা, ইফতিখার আহমেদ, মোহাম্মদ রিজওয়ান, মোহাম্মদ হারিস, শাদাব খান, মোহাম্মদ নওয়াজ, উসামা মীর, হারিস রউফ, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, নাসিম শাহ, শাহীন আফ্রিদি, সৌদ শাকিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *