ভারতীয় বোলার দের দাপট চলমান আইসিসি বিশ্বকাপের সব সিলিন্ডারে

Home » ভারতীয় বোলার দের দাপট চলমান আইসিসি বিশ্বকাপের সব সিলিন্ডারে

আজকের পোস্টে আমরা বর্তমান ওয়ার্ল্ডকাপে ভারতীয় বোলার দের নিয়ে কথা বলতে যাচ্ছি। আইসিসি ওয়ার্ল্ডকাপ, ওয়ার্ল্ডকাপে ভারতের পারফরম্যান্স, ভারতের বোলিং লাইনআপ, কিছু হাইলাইট, অন্যান্য দলের সাথে তাদের তুলনা, তাদের সফলতার কারণ ইত্যাদি সকল বিষয় নিয়া আজকের পোস্টে আলোচনা করা হবে। তো আর দেরি না করে চলুন শুরু করা যাক।

আইসিসি ওয়ার্ল্ডকাপ

আইসিসি ওয়ার্ল্ডকাপ হচ্ছে ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং সম্মানিত টুর্নামেন্ট। বর্তমানে ২০২৩ ক্রিকেট বিশ্বকাপ চলছে। মোট ১০টি ক্রিকেট দল এই ওয়ার্ল্ডকাপে অংশগ্রহণ করেছে। যা হলো: বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, সাউথ আফ্রিকা, আফগানিস্তান এবং নেদারল্যান্ডস। ২০২৩ ক্রিকেট বিশ্বকাপে বর্তমানে প্রথম পজিশনে রয়েছে ভারত৷ মোট ৩টি ম্যাচ খেলে ৩টিতেই তারা জয় লাভ কর। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে নিউজিল্যান্ড।

নিউজিল্যান্ডও ৩টি ম্যাচ খেলে তিন ম্যাচেই জয় লাভ করে। কিন্তু নেট রান রেটের দিক থেকে ভারত এগিয়ে।

তৃতীয় পজিশনে রয়েছে সাউথ আফ্রিকা।

সাউথ আফ্রিকা ২টি ম্যাচ খেলে প্রতিটিতেই জয় লাভ করে। চতুর্থ স্থানে রয়েচজে পাকিস্তান।

পাকিস্তান ৩ ম্যাচ খেলে দুইটিতে জয় পায় এবং একটিতে হারে। ঐ একটি ম্যাচ পাকিস্তান হারে ভারতের সাথে।

ভারতের পারফরম্যান্স

২০২৩ ক্রিকেট বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত ভারতের পারফরম্যান্স অত্যন্ত ভালো। তারা এখন পর্যন্ত একটি ম্যাচও হারেনি। ভারত এখন অবদি অস্ট্রেলিয়া, আফগানিস্তান এবং পাকিস্তানের সাথে ম্যাচ খেলে এবং প্রতিটিতে জয় লাভ করে। প্রতিটি ম্যাচই তারা সহজেই জিতে যায়।

তাদের বর্তমানে স্কোয়াডে রয়েছে রোহিত শর্মা, শুভমান গিল, ভিরাট কোহলি, শ্রেয়াস আইয়ার, সুর্যকুমার যাদব, হার্দিক পান্ডে, লোকেশ রাহুল, ইশান কিশান, রবীচন্দ্রন আশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা, শারদুল ঠাকুর, সিরাজ, মোহাম্মদ শামী, কুলদীপ যাদব, জাসপ্রিত বুমরাহ।

তাদের ওভারঅল পারফরম্যান্স অনেক ভালো। বিশেষভাবে বলতে গেলে তারা বোলিং খুবই ভালো করছেন। তারা যে তিনটি ম্যাচ খেলেছেন তার মধ্যে দুইটিতেই বিপরীত পক্ষকে ২০০ এর কম রানের মধ্যে অল আউট করে দেয়।

তারা কিন্তু ছোটো খাটো কোনো প্রতিপক্ষ ছিল না। তারা ছিল অস্ট্রেলিয়া এবং পাকিস্তান।

তাদের স্পিন এবং পেইস বোলিং উভয়ই খুবই ভালো হচ্ছে।

প্রথম ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার সাথে ৬ উইকেট হাতে রেখে জয়।

দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের সাথে ৮ উইকেট হাতে রেখে জয় এবং তৃতীয় ম্যাচে পাকিস্তানের সাথে ৭ উইকেটে জয় লাভ করে।

প্রথম ম্যাচে ভারত ৯ ওভার হাতে রেখে জয় লাভ করে। দ্বিতীয় ম্যাচে ৩৫ ওভারের মধ্যেই ২৭৩ রানের লক্ষ্যে পৌছাঁয়।

এবং তৃতীয় ম্যাচে ২০ ওভার হাতে রেখে শক্ত প্রতিপক্ষ পাকিস্তানকে উড়িয়ে দেয়।

ভারতীয় বোলার লাইনআপ

বর্তমানে অনেক ভালো ভালো ভারতীয় বোলার রয়েছে। তাদের পেইস এবং স্পিন আক্রমণ সমানে সমান শক্তিশালী। প্রথমে আমরা তাদের রিসেন্ট ম্যাচগুলোর বোলার নিয়ে কথা বলব। ভারতের কি বোলার বা স্টার্টিং বোলার হচ্ছেন জাসপ্রিত বুমরাহ এবং মোহাম্মদ সিরাজ।

তারা উভয়ই খুবই ভালো দুইজন আন্তর্জাতিক মানের বোলার। যারা যেকোনো ব্যাটসম্যানকেই চাপের মধ্যে ফেলতে সক্ষম।

এছাড়াও তাদের আরও একজন পেইস বোলার খেলছেন তিনি হচ্ছেন অলরাউন্ডার হার্ডিক পান্ডে।

বলে ব্যাটে উভয় ক্ষেত্রেই তিনি ভালো করছেন। এছাড়াও রয়েছে শারদুল ঠাকুর। এখন স্পিন ডিপার্টমেন্ট নিয়ে কথা বলা যাক।

প্রথমেই রয়েছে কুলদিপ যাদব যিনি খুবই ভালো ফর্মে রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে রবীচন্দ্রন আশ্বিন এবং রবীন্দ্র জাদেজা।

তারা যে কেবল ভালো খেলেন তা কিন্তু নয় তাদের পূর্বের অভিজ্ঞতাও ওয়ার্ল্ডকাপে কাজে লাগবে।

এছাড়াও তাদের অতিরিক্ত হিসেবে রয়েছেন মোহাম্মদ শামী। তিনিও একজন ভালো ফাস্ট ভারতীয় বোলার ।

ম্যাচ হাইলাইট

ভারত বনাম অস্ট্রেলিয়া:

টস জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় অস্ট্রেলিয়া। প্রথমেই মাত্র ৫ রানে অস্ট্রেলিয়া তাদের প্রথম উইকেট হারায়। এরপর দ্বিতীয় উইকেট পড়ে ৭৪ রানে। এরপর শুরু হয় ব্যাটিং বিপর্যয়। ১১০ রানে তৃতীয় উইকেট এবং ১১৪ রানে চতুর্থ ও পঞ্চম উইকেট পড়ে যায়।

১৪০ রানে ষষ্ঠ এবং সপ্তম উইকেট যায়। শেষ পর্যন্ত তাদের রান দাঁড়ায় ১৯৯।

এর বিপরীতে ব্যাটে নেমে রোহিত, ইশান কিশান এবং শ্রেয়াস আইয়ার শূন্য করে বিদায় নেয়।

এরপর ভিরাট কোহলি এবং লোকেশ রাহুল একটি বড় পার্টনারশিপ করেন।

কোহলি ৮৫ রান করে আউট হয়ে যায় এবং লোকেশ রাহুল অপরাজিত ৯৭ করেন।

ভারত বনাম আফগানিস্তান:

এই ম্যাচেও আফগানিস্তান টস জিতে ব্যাট নেয়। সব ব্যাটসম্যানরাই মোটামুটি ভালো খেলেন। হাসমাতুল্লাহ শাহিদি ৮০ এবং আযমাতুল্লাহ ওমর‍যায় ৬২ করেন। মোট স্কোর দাঁড়ায় ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৭২ রান।

ব্যাটে নেমে রোহিতের সেঞ্চুরি এবং কোহলির হাফ সেঞ্চুরি তাদের জয় এনে দেয়।

ভারত বনাম পাকিস্তান:

ভারত পাকিস্তান ম্যাচে পাকিস্তান মাত্র ১৯১ রানে গুটিয়ে যায়। বাবর আজমের ৫০ এবং রিজওয়ানের ৪৯ ছাড়া কেউই তেমন ভালো ব্যাট করতে ব্যর্থ হয়। ভারত খুব সহজেই জিয় ছিনিয়ে নেয়। রোহিত করেন ৮৬ এবং শ্রেয়াস আইয়ার করেন ৫৩।

অন্যান্য দলের সাথে ভারতের তুলনা

ইতিমধ্যে বেশ কয়েকবার বলেছি যে ভারত অন্যান্য সব দলের চেয়ে ভালো খেলেছে। তারা বোলিং ব্যাটে উভয়ক্ষেত্রেই খুব ভালো খেলেন।

রোহিত শর্মা ৩ ম্যাচে একটি শূন্য করেন এবং তার মোট রান দাঁড়ায় ২১৭ অর্থাৎ গড়ে প্রায় ৮০।

তার তিন ম্যাচে একটি সেঞ্চুরি এবং একটি হাফ সেঞ্চুরি রয়েছে।

এবারের বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ উইকেট টেকার বুমরাহ যে ৮টি উইকেট অএয়েছে।

এছাড়াও হার্দিক পান্ডে, জাদেজা এবং কুলদীপ ৫টি করে উইকেট পান।

ভারতীয় বোলার হচ্ছে তাদের অন্যতম সফলতার কারণ 

ভারতের সফলতার বেশ কিছু কারণ রয়েছে। তাদের ব্যাটিং এবং বোলিং উভয়ই খুবই ভালো। তাদের খুবই শক্তিশালি এবং সুসংগঠিত একটি ব্যাটিং লাইনআপ র‍য়েছে।

ভারতীয় বোলার দের মধ্যে পেইস এবং স্পিন দুটিই সমান শক্তিশালী।

তাদের বুমরাহ, সিরাজ এবং শামির মতো পেইস বোলার রয়েছে।।ঠিক তেমনি কুলদীপ যাদব এবং জাদেজাও রয়েছেন।

উপসংহার

ভারতের এবার দল খুবই শক্তিশালী। হতে পারে এবারই তারা নিজেরদের মাঠে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হবে।

কমপক্ষে এখন পর্যন্ত যে তিনটি ম্যাচ ভারত খেলেছে তা থেকে এতটুকু তো বলাই যায়।

চ্যাম্পিয়ন যদি নাও হতে পারেন তবুও ফাইনালে ওঠার ভালো সুযোগ রয়েছে। এছাড়া সেমিফাইনালে ওঠা তো অনেকটাই নিশ্চিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *