ভারত বনাম পাকিস্থান: কারা এশিয়া কাপের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকবে?

Home » ভারত বনাম পাকিস্থান: কারা এশিয়া কাপের লড়াইয়ে এগিয়ে থাকবে?

আজকে আমরা জানবো ভারত বনাম পাকিস্থান, কোন দল এশিয়া কাপের লড়াইয়ে এগিয়ে আছে? শত অপেক্ষা শেষে এশিয়া কাপ ক্রিকেট টুর্নামেন্ট শুরু হয়েছে পাকিস্থানের মাঠে উদ্বোধনী ম্যাচের মধ্য দিয়ে। প্রথম ম্যাচেই স্বাগতিক দল পাকিস্থান ঘরের মাঠে নেপালের বিপক্ষে দুর্দান্ত এক জয় পেয়ে যায়। পাকিস্থান তাদের দ্বিতীয় ম্যাচে মুখোমুখি হবে ভারতের সাথে।

ক্রিকেট ইতিহাসে একটি ঐতিহাসিক দিন হতে যাচ্ছে আগামী ২রা সেপ্টেম্বর তারিখে। এসিসি কতৃক আয়োজিত এশিয়া কাপ টুর্নামেন্টে মুখোমুখি হবে গ্রুপ ‘এ’ তে থাকা দুই দাপুটে দল ভারত এবং পাকিস্থান। ভারত এবং পাকিস্থানের ম্যাচ মানেই যে আকর্ষণীয় কিছু ঘটবে সেটা সকলেই জানে। আর তাইতো অপেক্ষার প্রহর গুনছে ক্রিকেট ভক্তরা। ইতিমধ্যেই ক্রিকেট ভক্তরা নিজেদের আলোচনায় বিচার করছে কোন দল পরিসংখ্যানগত কিংবা বিগত পারফরম্যান্সের দিক থেকে এগিয়ে আছে সে বিষয়টা।

আজকের আর্টিকেল থেকে এটাই উদঘাটন করা হবে যে বিগত পারফরম্যান্স এবং পরিসংখ্যান অনুযায়ী এশিয়া কাপে ভারত বনাম পাকিস্থান এর মধ্যে কোন দল সবচেয়ে বেশি এগিয়ে সে ব্যাপারে।

ভারতীয় দলের শক্তিশালী দিক

ভারতীয় দলের শক্তিশালী দিনগুলো বিশ্লেষণ করার জন্য তাদের প্রকাশিত এশিয়া কাপ স্কোয়াড বিশ্লেষণ করতে হবে। অনেকটাই চমকের সাথে ২১ আগস্ট তারিখে ভারত তাদের এশিয়া কাপ টুর্নামেন্টের স্কোয়াড প্রকাশ করেছিল।

এর পর থেকেই রীতিমত আলোচনা চলছে তাদের স্কোয়াড সম্পর্কে।

নিচে ভারতের পুরো স্কোয়াড এক নজরে দেওয়া বিশ্লেষণ করা হলো।

ভারতের এশিয়া কাপ স্কোয়াড

রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শুভমান গীল, বিরাট কোহলি, শ্রেয়াস আইয়ার, সূর্যকুমার যাদব, তিলক ভার্মা, লোকেশ রাহুল, ঈশান কিষাণ, হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, শার্দুল ঠাকুর, অক্ষর প্যাটেল, কুলদীপ যাদব, জাসপ্রিত বিদ্রোহী, মোহাম্মদ শামী, মোহাম্মদ সিরাজ, প্রসিধ কৃষ্ণা।

ব্যাটিং ইউনিট: রোহিত শর্মা, শুভমান গীল, বিরাট কোহলি, শ্রেয়াস আইয়ার, সূর্যকুমার যাদব, তিলক ভার্মা, লোকেশ রাহুল, ঈশান কিষাণ।

বোলিং ইউনিট: কুলদীপ যাদব, জাসপ্রিত বিদ্রোহী, মোহাম্মদ শামী, মোহাম্মদ সিরাজ, প্রসিধ কৃষ্ণা।

অলরাউন্ডার: হার্দিক পান্ডিয়া, রবীন্দ্র জাদেজা, শার্দুল ঠাকুর, অক্ষর প্যাটেল।

সাম্প্রতিক কর্মক্ষমতা বিশ্লেষণ | ভারত বনাম পাকিস্থান

বর্তমান পরিসংখ্যান বলে ভারতের সম্প্রতিক পারফরম্যান্স অনেক ভালো। স্কোয়াডের খেলোয়াড়দের দুর্দান্ত ফিটনেস এবং ফর্মে থাকা দলকে অবশ্যই স্বস্তিতে রাখবে।

এছাড়াও ভারতীয় দলের ব্যাটিং, বোলিং এবং অন্যান্য সকল ইউনিটের উপযুক্ত খেলোয়াড় রয়েছে স্কোয়াডে।

ব্যাটিং ইউনিটে থাকা রোহিত শর্মা ব্যাট হাতে দলকে অনেকটাই এগিয়ে রাখতে পারেন।

এছাড়াও দলে আছেন বিরাট কোহলি, যিনি পাকিস্থানের বিপক্ষে সবার নজরে থাকবেন।

ওপেনার শুভমান গীল সাম্প্রতিক আইপিএল এবং উইন্ডিজ সিরিজে দারুন ছন্দে ছিলেন।

এছাড়াও দলে শ্রেয়াস আইয়ার এবং লোকেশ রাহুলের অন্তর্ভুক্তি অনেকটা চাপ কমাবে ভারতের।

বোলিং ইউনিটে ফিরেছে তারকা পেসার বুমরা। যিনি একাই প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের জন্য হুমকি হতে পারেন।

এছাড়াও শামী, কৃষ্ণা, সিরাজ ইতিপূর্বে ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগগুলোতে ভালো করেছে।

অল রাউন্ডার হার্দিক দলের সহ অধিনায়ক। এছাড়াও অল রাউন্ডার হিসেবে আছেন জাদেজা, অক্ষরের মতো খেলোয়াড়।

পুরো স্কোয়াডের বেশিরভাগ খেলোয়াড়দের রয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা, যেটি ভারতীয় দলকে নিঃসন্দেহে এগিয়ে রাখবে। তবে ভারতের সবচেয়ে শক্তিশালী দিক হচ্ছে দলের ৫ গুরুত্তপূর্ণ খেলোয়াড় বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, হার্দিক পান্ডিয়া, সুর্যকুমার যাদব ও জসপ্রীত বুমরা।

পাকিস্থান দলের শক্তিশালী দিক

এশিয়া কাপের জন্য অনেক আগেই নিজেদের স্কোয়াড প্রকাশ করেছিল পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড। দলে ছিল চেনাপরিচিত সব মুখ।

এছাড়াও এশিয়া কাপে ইতিমধ্যেই পাকিস্থান খেলেছে একটি ম্যাচ, যেখানে ছিল স্বস্তির জয়।

দুর্দান্ত জয় দিয়ে এশিয়া শুরু করা পাকিস্থানের আত্মবিশ্বাস বৃদ্ধি করেছে অনেকটাই।

পাকিস্থানের স্কোয়াড এবং মূল ফ্যাক্টরগুলো এক নজরে দেখা নেওয়া যাক।

পাকিস্তানের এশিয়া কাপ স্কোয়াড

বাবর আজম (অধিনায়ক), মোহাম্মদ রিজওয়ান, ইমাম উল হক, মোহাম্মদ নাওয়াজ, সৌদ শাকিল, শাহিন শাহ আফ্রিদি, আবদুল্লাহ শফিক, ফখর জামান, সালমান আলি আঘা, ইফতেখার আহমেদ, মোহাম্মদ হারিস, শাদাব খান, উসামা মীর, ফাহিম আশরাফ, হারিস রউফ, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র ও নাসিম শাহ।

ব্যাটিং ইউনিট: বাবর আজম, মোহাম্মদ রিজওয়ান, ইমাম উল হক, মোহাম্মদ নাওয়াজ, সৌদ শাকিল, ফখর জামান, ইফতেখার আহমেদ, আবদুল্লাহ শফিক, সালমান আলি আঘা, মোহাম্মদ হারিস, ফাহিম আশরাফ।

বোলিং ইউনিট: শাহিন শাহ আফ্রিদি, হারিস রউফ, মোহাম্মদ নওয়াজ, উসামা মীর, শাদাব খান, নাসিম শাহ, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র।

সাম্প্রতিক কর্মক্ষমতা বিশ্লেষণ | ভারত বনাম পাকিস্থান

পাকিস্থান দলের বর্তমান ফর্ম অত্যন্ত ভালো। তারা বর্তমানে জয়ের ধারাবহিকতায় আছে। এশিয়া কাপের পূর্বে পাকিস্থান দল আফগানিস্থানের সাথে ৩ ম্যাচ সিরিজের ওডিআই খেলে। উক্ত সিরিজে দাপুটে পারফরমেন্স দেখিয়ে আফগানিস্থানকে হোয়াইটওয়াশ করে পাকিস্তান।

এছাড়াও এশিয়া যাওয়ার উদ্বোধনী ম্যাচের দাপুটে জয় বলে দিচ্ছে পাকিস্থান বর্তমান এশিয়া কাপে দাপুটে ফর্মে আছে।

দলের অধিনায়ক দুর্দান্ত ফর্মে আছেন।

এছাড়াও পাকিস্থানের আছে শক্তিশালী পেস বোলিং ইউনিট। ব্যাটিং ইউনিটের ক্ষেত্রে পাকিস্থানের মিডল অর্ডার অনেকটাই শক্তিশালী।

বিশেষ করে বাবর আজম এবং রিজওয়ান জুটি প্রতিপক্ষকে হারাতে বিশেষ ভূমিকা রাখতে পারে।

এশিয়া কাপে হেড টু হেড রেকর্ড | ভারত বনাম পাকিস্থান

ভারত বনাম পাকিস্থান একে অপরের ভূমিতে ম্যাচ না খেললেও অনেক আগে থেকেই নিরপেক্ষ ভূমিতে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে ভারত এবং পাকিস্থানের মধ্যকার বিভিন্ন সিরিজ এবং টুর্নামেন্ট।

তারই প্রেক্ষিতে এশিয়া কাপ টুর্নামেন্টে ভারত এবং পাকিস্থান খেলবে নিরপেক্ষ ভেন্যু শ্রীলংকায়।

এশিয়া কাপের ইতিহাসে বেশ কয়েকবার মুখোমুখি হয় ভারত এবং পাকিস্থান দল।

এই পর্যন্ত এশিয়া কাপের মঞ্চে তারা ১৩ বার মুখোমুখি হয় একে অপরের।

এশিয়া কাপে ১৩বার মুখোমুখি হয়ে ভারত পাকিস্থানের বিপক্ষে জয় পেয়েছে ৭টি ম্যাচে, যেখানে পাকিস্থান জয় পেয়েছে ৫টি ম্যাচে।

ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যকার একটি ম্যাচ বাতিল করা হয়েছিল।

অর্থাৎ এশিয়া কাপ ইতিহাসে ভারত এবং পাকিস্তানের মধ্যকার পরিসংখ্যানে এগিয়ে আছে ভারত দল।

অন্যদিকে, এশিয়া কাপের বাইরে ওডিআই ফরমেটে ভারত এবং পাকিস্তান দল মুখোমুখি হয় ১৩২টি ম্যাচে, যেখানে ভারত হয় পেয়েছে ৫৫ ম্যাচে এবং পাকিস্থান জয় পেয়েছে ৭৩টি ম্যাচে।

যার মধ্যে ৪টি ম্যাচ বাতিল হয়েছিল। পরিসংখ্যান অনুযায়ী ওডিআই ফরমেটে ভারতের তুলনায় এগিয়ে আছে পাকিস্থান দল।

যদিও এশিয়া কাপের পরিসংখ্যানে ২ ম্যাচে পিছিয়ে পাকিস্থান। তবে বর্তমান ফর্ম এবং পারফরম্যান্সের দিক থেকে দুটি দলই এগিয়ে আছে সমানতালে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *