মিচেল স্টার্ক প্রায় এক দশক পর আইপিএলে ফিরতে পারেন

Home » মিচেল স্টার্ক প্রায় এক দশক পর আইপিএলে ফিরতে পারেন

অজি ক্রিকেটার মিচেল স্টার্ক আবার ফিরতে পারেন আইপিএলে। প্রায় এক দশক পর এই টি-টোয়েন্টি ক্লাব লীগে দেখা যেতে পারে তাঁকে।

মিচেল স্টার্ক শেষবার আইপিএলে খেলেছিলেন ২০১৫ সালে। সেবার পায়ে চোট পেয়ে ছিটকে যান তিনি।

পরে দেশের হয়ে খেলা ও পরিবারকে বেশী সময় দেওয়ার জন্য কয়েক বছরের জন্য নিজেকে সরিয়ে রাখেন।

কেন সরে গেছিলেন অজি তারকা?

সেবছর মিচেল স্টার্ক খেলেছিলেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জর্স বেঙ্গালুরুর হয়ে।  নয় মাস ধরে আরসিবি ফ্রাঞ্চাইজির হয়ে ১৪টা ম্যাচ খেলেছিলেন তিনি।

সেই একই বছরে বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়কত্ব ও সামলেছিলেন মিচেল স্টার্ক।  তাঁর নেতৃত্বেই ঘরের মাঠে সেবার বিশ্বকাপ জেতে অজিরা।

বিশ্বকাপের পরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ট্যুরে ও মিচেল স্টার্কই ক্যাপ্টেন ছিলেন। একই বছরে ইংল্যান্ডের সাথে অ্যাশেজে ও তিনিই নেতৃত্ব দিয়েছিলেন।

২০১৫ এর শেষের দিকে এডিলেডে খেলতে গিয়ে পায়ে চোট পান মিচেল স্টার্ক, তারপর থেকেই সমস্ত লীগ থেকে বিরত ছিলেন তিনি।

আইপিএল হোক বা নিজের দেশের বিবিএল, সে সময় থেকে সব টি-টোয়েন্টি ফ্রাঞ্চাইজির থেকেই সরে যান মিচেল স্টার্ক।

এই সিদ্ধান্তের জন্য মিচেল স্টার্ক কে আর্থিক ক্ষতি ও স্বীকার করতে হয়। তাঁর সতীর্থদের মতো পারিশ্রমিক বাড়াতে পারেননি তিনি।

কেমন ছিল স্টার্কের আইপিএল সফর?

আইপিএলে এখনো পর্যন্ত দুটো সিজন খেলেছেন অস্ট্রেলিয়ান এই ফাস্ট বোলার। মোট ২৭টি ম্যাচে তাঁর সংগ্রহ ৩৪টি উইকেট।

মাঝে ২০১৮ সালে আবার আইপিএলে ফিরতে চেয়েছিলেন মিচেল স্টার্ক। মোটা অংকের বিনিময়ে কেকেআর তাঁকে নিয়েছিল।

সেবার শেষ মুহূর্তে পিঠে চোটের জন্য টুর্নামেন্ট থেকে সরে যান তিনি। সব কিছু ঠিক থাকলে নয় বছর আবার তাঁকে দেখা যাবে।

শোনা যাচ্ছে, হায়দ্রাবাদ, মুম্বাই বা আবার কলকাতার মতো টিম ঝাঁপাতে পারে মিশেল স্টার্কের জন্য।

কেন হটাৎ মতবদল অস্ট্রেলিয়ান পেসারের?

আগামী বছরে অস্ট্রেলিয়ার তুলনামূলক ভাবে কম সিরিজ খেলার কথা, যার ফলে ক্লাব লীগে খেলতে সুবিধা হবে মিশেল স্টার্কের।

২০২৪ এ অস্ট্রেলিয়া শুধু নিউজিল্যান্ড ট্যুর  এবং আফগানিস্তান, আয়ারল্যান্ড ও ইংল্যান্ডের সাথে হোয়াইট বল সিরিজ খেলবে।

আসন্ন আইপিএল কে তাই আগামী ২০২৪ টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবেই ব্যবহার করতে চান মিচেল স্টার্ক।

২০২৪ এর মাঝামাঝি সময়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজে এই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে। তাঁর আগে আইপিএল খেলা নিঃসন্দেহে লাভজনক।

ইসপিএন সূত্রে জানা গেছে যে  ‘উইলো ক্রিকেট টক্’ পডকাস্টে এসে নিজের আইপিএলে ফেরার সিদ্ধান্তের কথা জানান মিচেল স্টার্ক।

কী বলছেন মিচেল স্টার্ক?

মিচেল স্টার্ক বলেন, “আট বছর হয়ে গেছে. পরের বছর আমি নিশ্চয়ই ফিরবো। অন্য অনেক কারণের মধ্যে সবচেয়ে বড়ো কারণ হচ্ছে বিশ্বকাপ।

কেউ যদি টি টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে আগ্রহী হয় তাঁর জন্য আইপিএল খুব ভালো প্রস্তুতি ম্যাচ হয়ে উঠতে পারে।

আগামী বছর দেশের হয়ে খেলার চাপ ও কম আছে তাই আমার মনে হয়, আইপিএলে ফেরার এটাই সেরা সময়”।

 টি-টোয়েন্টি না টেস্ট ক্রিকেট?

আইপিএল থেকে দূরে থাকার অন্যতম একটা কারণ ছিল এই যে মিচেল স্টার্ক টেস্ট ক্রিকেটে কখনো অনুপস্থিত থাকতে চাননি।

মিশেল স্টার্কের লক্ষ্য ছিল টেস্ট ক্রিকেটে একশোটি ম্যাচ খেলা। এখনো অব্দি কেবল গ্লেন ম্যাকগ্রারই এই রেকর্ড আছে।

কিংবদন্তী এই অজি পেসারই অস্ট্রেলিয়ার একমাত্র ক্রিকেটার যিনি একশোটি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন। এই রেকর্ড ছোঁয়াকেই মিচেল স্টার্ক প্রাধান্য দিয়েছেন।

মিচেল স্টার্ক আজ পর্যন্ত ৮২টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন. ম্যাচ সংখ্যায় সেঞ্চুরি করার জন্য তাঁকে এখনো অন্তত বছর দুয়েক খেলতে হবে।

যদি তিনি ভবিষ্যতে ফিউচার ট্যুর পর্যন্ত খেলতে পারেন তবে মিচেল স্টার্ক তাঁর কেরিয়ারের শততম ম্যাচটি খেলবেন ২০২৫- ২৬ সালের অ্যাশেজ নাগাদ।

বিশ্বকাপে কি থাকছেন স্টার্ক?

খুব সম্প্রতি কুঁচকির সমস্যার জন্য মিচেল স্টার্ক দলে একটু কম সুযোগ পাচ্ছেন. যদি ও আসন্ন বিশ্বকাপের জন্য অস্ট্রেলিয়া টিমে থাকছেন তিনি।

ক্যাপ্টেন প্যাট কামিন্স, স্টিভ স্মিথ, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও স্টার্কের মতো চোট নিয়েই বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা পেয়েছেন কিন্তু টুর্নামেন্টে তাঁদের খেলা এখনো অনিশ্চিত।

ওয়ান ডে ফরম্যাটের এই মহাযজ্ঞে স্টার্ক চোট সত্ত্বেও নিজের ধারা বজায় রাখতে পারেন কি না, সেদিকেই তাকিয়ে অস্ট্রেলিয়ার সমর্থকরা।

বিশ্বকাপ মিটতে না মিটতেই পরের বছর আইপিএল নিলামে অস্ট্রেলিয়ান এই ফাস্ট বোলারের জন্য কোন কোন দল দর হাঁকে, সেটাই দেখার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *